বাম কর্মী-সমর্থকদেরই সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে: সুজন চক্রবর্তী

108

গাজোল: বর্তমানে বিজেপি ও তৃণমূল মিলে রাজ্যকে যে অবস্থার মুখে ঠেলে দিচ্ছে তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে পারে একমাত্র লাল ঝান্ডাই। এই অবস্থায় বাম কর্মী-সমর্থকদেরই সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। মঙ্গলবার গাজোলে কর্মীসভায় এসে এমনই মন্তব্য করলেন বাম পরিষদীয় দলের নেতা ডঃ সুজন চক্রবর্তী।

তিনি বলেন, ‘মানুষ চিনতে আমাদের ভুল হয়েছিল, এখন তার গুণাগার দিতে হচ্ছে। আমাদের কর্মী-সমর্থকদের ভোটে নির্বাচিত হয়ে প্রথমে তৃণমূল এবং তারপরে বিজেপিতে গিয়েছে দিপালী বিশ্বাস। অনেক গ্রাম পঞ্চায়েতের ক্ষেত্রেও এই সমস্ত ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু এই সমস্ত ঘটনার ফলে মালদা জেলার গাজোলে লাল দুর্গের রং একটু ফিকে হলেও একেবারে মুছে যায়নি। তবে বর্তমানে বিজেপি এবং তৃণমূল মিলে আমাদের রাজ্যকে যে অবস্থার মুখে ঠেলে দিচ্ছে তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে পারে একমাত্র লাল ঝান্ডাই। এই অবস্থায় বাম কর্মী সমর্থকদেরই দাঁড়াতে হবে সাধারণ মানুষের পাশে।’

- Advertisement -

সিপিআইএমের উদ্যোগে এদিন গাজোলের একটি প্রেক্ষাগৃহে কর্মীসভার আয়োজন করা হয়েছিল। সভার মুখ্য বক্তা ছিলেন সুজন চক্রবর্তী। এদিন কর্মীসভায় তৃণমূল এবং বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করেন সুজনবাবু। তিনি বলেন, ‘মানুষ চিনতে ভুল হয়েছিল আমাদের। আর এখন তার গুনাগার দিতে হচ্ছে। দিপালী বিশ্বাসকে প্রার্থী করা সাধারণ মানুষের ভুল ছিল না। ছিল আমাদের নেতৃত্বের ভুল। বর্তমানে সারা রাজ্যে যেভাবে দলত্যাগ এবং যোগদান কর্মসূচি চলছে তা দেখে মনে হচ্ছে রাজ্যের আর কোনও সমস্যা নেই। তবে এসব কোনও খবরই নয়, আসল খবর হল মাননীয়া এখন অপ্রকাশ্য, তিনি যেদিন বিজেপিতে প্রকাশ্য হবেন সেটাই হচ্ছে আসল খবর। যাঁদের দিয়ে দল ভাঙানোর কাজ করতেন মাননীয়া তাঁরাই এখন তৃণমূল ভেঙে বিজেপিতে যাচ্ছেন। কিন্তু বাম আমলে এই ধরনের কাজ কোনও দিন হয়নি।’

বাম কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে সুজনবাবু পাঁচটি কাজ নির্দিষ্ট করে দিয়েছেন। সুজনবাবুর কথায়, পুরোনো দিনের বাম কর্মী যাঁরা হয়তো কোনও কারণে বসে গিয়েছেন তাঁদের আবার লড়াইয়ে শামিল করতে হবে। ছাত্র-যুবদের পাশে দাঁড়াতে হবে। কোনও ত্রুটি থাকলে তা শুধরে নিতে হবে। মানুষের মতামতকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। বুথ স্তরের কমিটিকে মজবুত করতে হবে। কর্মী সভা শেষে এক বিশাল মিছিল গোটা গাজোল পরিক্রমা করে। সুজনবাবু ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিপিএমের জেলা সম্পাদক অম্বর মিত্র, রাজ্য কমিটির সদস্য জমিল ফিরদৌস, সিপিএম নেতা বিশ্বনাথ ঘোষ, রঞ্জিত চক্রবর্তী, প্রণব চৌধুরী, সাধু টুডু, সুজিত দাস সহ অন্যান্যরা।