জিতে সবুজ আবির নিয়ে জয়োল্লাস করব, দাবি সুজাতার

107

জামালদহ: ভোটের পর সবুজ আবির নিয়ে জয়োল্লাস করতে আসবেন। কোচবিহারের জামালদহে তৃণমূলের নির্বাচনী জনসভায় যোগ দিয়ে এমনটাই দাবি করলেন তৃণমূল নেত্রী সুজাতা মণ্ডল খাঁ। জামালদহ অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেস কমিটির ডাকে রবিবার সন্ধ্যায় সুপার মার্কেট প্রাঙ্গণে এই সভার আয়োজন করা হয়। সেখানেই নানা প্রসঙ্গ টেনে বিজেপিকে তোপ দাগেন সুজাতা। দলের কর্মী-সমর্থকের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘মেখলিগঞ্জ নম্বর ওয়ান বিধানসভা কেন্দ্র। আবার এখানেই নির্মিত হয়েছে জয়ী সেতু। তাই তৃণমূলকে জয়ী করে এক নম্বর স্থানে তুলে আনার দায়িত্ব আপনাদের।’ সুজাতা বলেন, ‘এখন দিদির দূত হয়ে আমি এসেছি। ভোটের পরে আবার আসব। তখন সবুজ আবির দিয়ে জয়োল্লাস করতে আসব।’

এদিন জনসভায় উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের কোচবিহার জেলা কমিটির সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়, চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান তথা দলের জেলা সহ সভাপতি পরেশচন্দ্র অধিকারী, মেখলিগঞ্জের বিদায়ী বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান, দলের মেখলিগঞ্জ ব্লক কমিটির সভাপতি উদয় রায়, মেখলিগঞ্জ টাউন সভাপতি লক্ষ্মীকান্ত সরকার প্রমুখ।

- Advertisement -

তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি পরেশচন্দ্র অধিকারী বলেন, ‘বিজেপি পেট্রোল, ডিজেল, সরিষার তেল ও রান্নার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে দিয়ে ঘরে ঘরে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। তাই বিজেপিকে প্রতিহত করতেই হবে। তৃতীয়বারের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসাতেই হবে।’ বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান বলেন, ‘বিনা পয়সায় র‍্যাশনে চাল, গম, বয়স্কদের ভাতার ব্যবস্থা করেছে রাজ্য সরকার। কিন্তু বিজেপি ফিরেও তাকায়নি। তাই নিজের অধিকার অক্ষুন্ন রাখতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আগামী দিনে হ্যাট্রিক করাতেই হবে।’ একইসঙ্গে বিজেপিকে ভাঁওতাবাজির দল বলে কটাক্ষ করেন তিনি।

কোচবিহার জেলা কমিটির সভাপতি পার্থপ্রতিম রায় বলেন, ‘আগামী ১০ এপ্রিল কোচবিহারে নির্বাচন। আমাদের প্রার্থী এখনও ঘোষণা হয়নি। আমরা প্রার্থী নিয়ে ভাবিত নই। আড়াইশোর বেশি আসন নিয়ে তৃণমূল তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসবে। ঘরে ঘরে কন্যাশ্রী, সবুজসাথীর সাইকেল পৌঁছে গিয়েছে। তিস্তা নদীর জন্য পরস্পরের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকা মেখলিগঞ্জ ও হলদিবাড়িকে জয়ী সেতুকে সংযুক্ত করেছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আছেন বলেই এটা সম্ভব হয়েছে।’