কলকাতা, ১৬ মেঃ রাজ্যে সপ্তম দফার ৯ টি আসনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে জনগণ প্রস্তুত। এই বিষয়ে সিপিআই(এম) পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সম্পাদক সূর্য মিশ্র এক বিবৃতিতে জানান, নির্বাচন কমিশনকে নিশ্চিত করতে হবে যাতে মানুষ অবাধে, শান্তিপূর্ণভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন। কমিশনের তরফে প্রচারের সময়সীমা কমিয়ে দিয়ে যে নির্দেশ জারি করা হয়েছে, সেখানে ভীতি ও ঘৃণার পরিবেশের কথা বলা হলেও কমিশনের কার্যকরী পদক্ষেপ দেখা যায়নি। কমিশনকে নিরপেক্ষভাবে আইন মোতাবেক পদক্ষেপ নিতে হবে। জানা গিয়েছে, সপ্তম দফার নির্বাচনে ওই ৯টি আসনে তৃণমূল ও বিজেপি বহিরাগতদের নিয়ে আসছে। এই দুই দলই জনগণের অবাধ ভোট চায় না। তারা জানে, অবাধ ভোট হলে তৃণমূল ও বিজেপি পরাজয়ের সম্মুখীন হবে। নির্বাচন কমিশনেরই দায়িত্ব ওই ৯ টি আসনে বহিরাগতরা যেন থাকতে না পারে। রাজ্য প্রশাসন ও পুলিশের ওপরে দায়িত্ব ছেড়ে দিয়ে কমিশন নিষ্ক্রিয় থাকতে পারে না। নির্বাচনী প্রচারের পুরো সময়টাই রাজ্যের ও কেন্দ্রের শাসক দল কৃত্রিম দ্বন্দ্বে লিপ্ত ছিল। দুই দল মিলে যে কদর্য রাজনীতি করেছে তার ফলে কলকাতায় বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার মতো ঘটনা ঘটেছে। সেই ঘটনায় প্রকৃত দোষীদের চিহ্নিত করে তদন্ত ও শাস্তির দায়িত্ব কমিশনকে নিতে হবে। পশ্চিমবঙ্গের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, প্রগতিশীল চেতনাকে এই দুই দলের আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে হবে। বামপন্থিরাই একমাত্র তা করতে পারে।