সুশান্তের স্মৃতিতে রাস্তা বিহারে

239

অনলাইন ডেস্ক: সুশান্ত সিং রাজপুতকে শ্রদ্ধা জানাতে তাঁর নামে রাস্তা তৈরির সিদ্ধান্ত নিল বিহার প্রশাসন। শুধু তাই নয়, দুই রাস্তার মোড়ের নামও অভিনেতার নামে রাখা হচ্ছে।

সুশান্ত আদি বাড়ি বিহারের পূর্ণিয়া জেলায়। সেই পূর্ণিয়া জেলার একটি রাস্তার নাম হবে সুশান্ত সিং রাজপুত পথ। পাশাপাশি পূর্ণিয়ার ফোর্ড কোম্পানি চকের নামকরণ হয়েছে সুশান্ত সিং রাজপুত চক। অভিনেতার অসংখ্য ভক্ত সুশান্তের নাম লেখা ফলকের সামনে সেলফি তুলতে দেখা গিয়েছে। সমগ্র কার্যক্রমের বিভিন্ন ছবি ও একটি ভিডিও ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। স্থানীয় পুরপ্রধান সবিতা দেবী জানান, সুশান্ত তাঁদের ঘরের ছেলে। তাই তাঁকে মনে রাখতেই এই ধরনের উদ্য়োগ নেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

১৪ জুন মুম্বইয়ের বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে সুশান্তের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। প্রথম থেকেই তাঁর মৃত্যুর কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে জানানো হয়, আত্মহত্যা করেছেন সুশান্ত। গলায় ফাঁস লাগার কারণে শ্বাসরোধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে তাঁর। তবে এই মৃত্যুর তদন্তভার  সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়া দাবি জানিয়েছেন অনেকেই।

মাত্র ৩৪ বছর বয়সে অভিনেতা কেন এমন সিদ্ধান্ত নিলেন সেই রহস্য খুঁজতে বান্দ্রা থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। তাঁর ঘনিষ্ঠ বন্ধু অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী, ভাই শৌভিক, পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালি, সুশান্তের শেষ ছবি ‘দিল বেচারা’-র পরিচালক মুকেশ ছাবরা সহ প্রায় ৩০ জন লোককে মৃত্যু রহস্য খুঁজতে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

এখনও তদন্ত চলছে। আরও কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে পুলিশ। তবে তাঁর পরিবারের তরফে অবশ্য মৃত্যু রহস্যের তদন্ত নিয়ে কিছু বলা হয়নি। প্রসঙ্গত, ১৯৮৬ সালের পটনায় জন্মগ্রহণ করেন সুশান্ত সিংহ রাজপুত। পরবর্তীকালে তাঁর পরিবার দিল্লিতে চলে আসে। দিল্লি কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়েও পড়ার সময় থেকেই থিয়েটারের প্রতি আগ্রহ তৈরি হয় তাঁর। সে কারণেই পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি তিনি। অভিনয়ের তাগিদে এরপর পাড়ি দেন মুম্বইয়ে।

২০০৮ সালে একতা কপূরের প্রযোজনায় ‘কিস দেশ মে হ্যাঁ মেরা দিল’ সিরিয়ালে প্রথম বড়পর্দায় দেখা যায় তাঁকে। পরের বছরই ‘পবিত্র রিস্তা’ সিরিয়ালে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। এই সিরিয়ালে অভিনয় করতে করতে বেশ কিছু রিয়্যালিটি শোয়ে অংশ নেন তিনি।

অভিষেক কপূরের ‘কাই পো ছে’ তাঁর প্রথম ছবি। ২০১৩-তে মুক্তি পাওয়া ‘কাই পো ছে’-তে সুশান্তের অভিনয়ের প্রশংসা কুড়োয়। এরপর ‘শুদ্ধ দেশি রোম্যান্স’, ‘পিকে’, ‘ডিটেক্টিভ ব্যোমকেশ বক্সী’, ‘কেদারানাথ’-র মতো ছবিতে নিজের অভিনয় দক্ষতা ছাপ রাখেন তিনি। মহেন্দ্র সিংহ ধোনির বায়োপিক ‘এমএস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’-তে তাঁর অভিনয় সাড়া ফেলে দেয়। শ্রদ্ধা কপুরের বিপরীতে ‘ছিচোরে’-তে বড়পর্দায় শেষ দেখা গিয়েছিল তাঁকে।