জেলে পর্যাপ্ত খাবার পাচ্ছেন না সুশীল

নয়াদিল্লি : খুনে অভিযুক্ত হিসেবে আপাতত জেল হেপাজতে রয়েছেন সুশীল কুমার। কিন্তু সেখানে পর্যাপ্ত খাবার না পেয়ে সমস্যায় পড়েছেন। তবে তিনি আবেদন জানালে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে দাবি জেল আধিকারিকদের।

কুস্তিগির সাগর ধনখড় হত্যা মামলায় মূল অভিযুক্ত সুশীল। গ্রেপ্তারির পর দুদফায় ১০ দিন পুলিশ হেপাজতে ছিলেন। ২ জুন তাঁকে জেল হেপাজতে পাঠায় আদালত। তারপর থেকেই অলিম্পিকে জোড়া পদকজয়ীর ঠিকানা মান্ডোলি জেলের ১৫ নম্বর সেল। এই জেলে সবমিলিয়ে প্রায় ১৫ হাজার বন্দি রয়েছেন। নিরাপত্তার স্বার্থে তিনি সেলে একাই রয়েছেন। কিন্তু খাবারের ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়েছেন। কুস্তিগির হওয়ায় সাধারণ মানুষের থেকে সুশীলের ডায়েট অনেকটাই আলাদা। কিন্তু জেলে তাঁকে আর পাঁচজনের মতোই খাবার দেওয়া হচ্ছে।

- Advertisement -

জেলে কী খাচ্ছেন সুশীল? খোঁজ নিয়ে জানা গেল, এই জেলে বন্দিদের প্রতিদিন দুবেলা ৮-১০টি রুটি, ভাত, ডাল ও সবজি দেওয়া হয়। অনুরোধ করলে ২-৩টি রুটি বেশি পাওয়া যায়। এই খাবারে পেট ভরছে না সুশীলের, মিটছে না প্রোটিনের চাহিদাও। তবে বিষয়টি নিয়ে জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সুশীল আবেদন করলে তা খতিয়ে দেখবেন জেলের চিকিৎসকরা। তাঁরাই ঠিক করবেন সুশীলের ডায়েট কী হবে। অথবা সুশীল চাইলে আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন। বিচারক তাঁর পক্ষে রায় দিলে পছন্দমতো খাবার পাবেন তিনি।

সূত্রের খবর, এই সমস্যার সাময়িক সমাধান করেছেন সুশীল। জেলের ক্যান্টিন থেকে দুধ এবং আম, তরমুজের মতো ফল কিনে খাচ্ছেন। তবে সুশীলকে নিয়ে কোনও ঝুঁকি নিতে নারাজ জেল কর্তৃপক্ষ। অন্য গ্যাংয়ের আক্রমণের সম্ভাবনা এড়াতে প্রথম থেকেই তাঁকে আলাদা সেলে একা রাখা হয়েছে। সেলে ২৪ ঘন্টা সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে নজরদারী চালানো হচ্ছে। ধীরে ধীরে জেলের জীবনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছেন তিনি। এই মামলায় ধৃত সুশীলের অন্য সঙ্গীদেরও তাঁর আশপাশের সেলে রাখা হয়েছে।