পুলিশকে রাজনৈতিক কাজে লাগাচ্ছে শাসকদল, পুরুলিয়ায় বিস্ফোরক শুভেন্দু

219

কাশীপুর: কাশীপুর নোয়াপাড়া এলাকা থেকে শুরু হয় রোড শো। রবিবার রোড শোয়ের পর কাশীপুর মোড় এলাকায় সভা করেন শুভেন্দু অধিকারী। এদিন রোড শোয়ের আগেই তৃণমূলকে নিশানা করে তোপ দাগেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন, ‘পুলিশকে রাজনৈতিক কাজে লাগাচ্ছে শাসকদল’। একইসঙ্গে তাঁর বিস্ফোরক অভিযোগ, ‘মধ্যরাতে গণনায় কারচুপি করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। কীভাবে পঞ্চায়েতের ক্ষমতা দখল করেছে তৃণমূল, তা জানি।’

শুভেন্দু বলেন, ‘গোটা রাজ্যের পাশাপাশি পুরুলিয়ার মানুষও বঞ্চিত। পুরুলিয়ায় মাটি হারাচ্ছে তৃণমূল, এখানে ৯-০ পাবে।’ এদিন তিনি আরও বলেন, ‘মানুষের আস্থা হারিয়েছে তৃণমূল। ক্ষমতার অপব্যবহার করছে শাসকদল। একটা কোম্পানিতে পরিণত হয়েছে।’

- Advertisement -

এদিন শুভেন্দু রাজ্যের শাসকদলকে নিশানা করে বলেন, ‘আগামী বিধানসভায় পোলিং এজেন্ট দিতে পারে নাকি তৃণমূল এখন তা সংশয়। এতো ভিড় দেখে ওদের মাথা খারাপ হয়ে যাবে।’

বিজেপি নেতা শুভেন্দু আজ সভামঞ্চ থেকে বলেন, ‘সোনার বাংলা গড়বে বিজেপি। মানুষের আস্থা এখন বিজেপির ওপর। রাজ্যে পালাবদল এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। কলকাতা ও দিল্লিতে একই সরকার চাই।’

কাশীপুর নোয়াপাড়া পেট্রোল পাম্প থেকে হাটতলা পর্যন্ত এই রোড শো করেন তিনি। তাঁর সঙ্গে ছিলেন সাংসদ জ্যোতির্ময় সিংহ মাহাতো। দুই মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামের পর এবার পুরুলিয়ায় শুভেন্দুর কর্মসূচি। দু’কিমি রোড শোয়ের পর একটা জনসভা করবেন তিনি। এই রোড শোয়ে উৎসাহ চোখে পড়ার মতো। হাটতলা মোড়েই পথসভা করার কথা তাঁর। এই সভায় বেশ কিছু তৃণমূল নেতা-কর্মী বিজেপিতে যোগদানের সম্ভাবনা। পুরুলিয়া লোকসভার ৭টি বিধানসভার মধ্যে ৫টি আসনে জিতেছিল তৃণমূল। ২০১৯-এর লোকসভা ভোটে সেই চিত্র পরিবর্তন হয়েছিল। ৬টি বিধানসভায় এগিয়ে ছিল বিজেপি।