শুভেন্দুর মন্ত্রিত্ব ত্যাগের পরই অশান্ত হয়ে উঠল খেজুরি

0

খেজুরি (পূর্ব মেদিনীপুর): গতকালই মন্ত্রিত্ব ছেড়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। একরাত কাটতে না কাটতেই অশান্ত হয়ে উঠল পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরি।

খেজুরিতে তৃণমূল কার্যালয়ে ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। অভিযোগ, রাতের অন্ধকারে খেজুরির পাটনা, কন্ঠিবাড়িতে তৃণমূলের কার্যালয় ‘দখল’ করে নেয় বিজেপি। তৃণমূলের পতাকা ছিঁড়ে, লাগিয়ে দেওয়া হয় বিজেপির দলীয় পতাকা। সূত্রের খবর আলিচকেও তৃণমূলের কার্যালয় ‘দখল’ করা হয়েছে। এদিকে কার্যালয় দখলের অভিযোগে শনিবার সকাল থেকেই রাস্তা অবরোধ করে তৃণমূল। মিঁয়ামোড় এলাকায় অবরোধে নেমেছেন তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করে পালটা বিজেপির দাবি, পুনরায় খেজুরিকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে তৃণমূল। বিজেপির এই অভিযোগ তৃণমূলের তরফে অস্বীকার করা হয়েছে। তৃণমূলের অভিযোগ, পুলিশ নিষ্ক্রীয় থাকায় এই ঘটনা ঘটেছে।

- Advertisement -

গতকালই মন্ত্রিত্ব ছেড়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। মন্ত্রীত্ব ছাড়ার বিষয়ে শুভেন্দু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরকে চিঠি দিয়েছেন। পদত্যাগপত্র গ্রহণের জন্য তিনি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন। চিঠিতে শুভেন্দু অধিকারী লেখেন, ‘আমি মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দিচ্ছি। পদত্যাগপত্র দ্রুত গ্রহণের আর্জি জানাচ্ছি। আমায় সাধারণ মানুষের সেবা করার সুযোগ দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।’ পূর্ব মেদিনীপুরে অধিকারী পরিবারের দাপট নিয়ে সন্দেহের কোনও অবকাশ নেই। আর নন্দীগ্রামে শুভেন্দুর একাধিপত্য নিয়েও কারও কোনও সন্দেহ নেই। ২০০৭ সালে নন্দীগ্রাম আন্দোলনের যে ঝড় উঠেছিল, তারই প্রতিফলন ঘটেছিল গোটা রাজ্যে। গত মঙ্গলবারই খেজুরিতে শুভেন্দু অধিকারী মিছিল করেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘আমরা মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করে থাকি। এই শান্তি, গণতন্ত্র, বাক স্বাধীনতা চিরস্থায়ী হোক। আমি আপনাদের পাশে সর্বদা এভাবেই থাকতে চাই।’