৭ ফেব্রুয়ারি আসানসোলে রোড শো-সভা শুভেন্দুর

167

আসানসোল: ‘হামারা বুথ সবসে মজবুত’, এই শ্লোগানের বাস্তবতা কতদূর হয়েছে তা দেখতে ও আসানসোল জেলার বুথের হালহকিকত জানতে বুথস্তরের কর্মীদের সঙ্গে আসানসোলে দলের জেলা কার্যালয়ে বৈঠক করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সম্পাদক অরবিন্দ মেনন। বিজেপি কর্মীদের তিনি বার্তা দিয়ে বলেন, ‘লক্ষ্য একটাই, বাংলা থেকে তৃণমূল কংগ্রেসকে সরানো। রাজ্যে ২০০-র বেশি আসন দখল করা।’ সেই লক্ষ্যেই ঝাঁপাতে ছোট-বড় সমস্ত বিজেপি কর্মীদের আহ্বান জানান অরবিন্দ মেনন। একই বার্তা দেন আসানসোলের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।

এই রাজ্যে বিজেপিকে সাংগঠনিকভাবে পাঁচটি জোনে ভাগ করা হয়েছে। সেই জোনের মধ্যে অন্যতম হল রাঢ়বঙ্গ। উত্তরবঙ্গের পাশাপাশি এই রাঢ়বঙ্গের বাড়তি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বিজেপির সর্বভারতীয় সম্পাদক অরবিন্দ মেননকে।

- Advertisement -

বৈঠক শেষে আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় বলেন, ‘বৈঠকে কি আলোচনা করা হয়েছে, তা তো বাইরে বলা যাবে না। তবে আমাদের একটাই লক্ষ্য, তা হল তৃণমূল কংগ্রেসকে হটানো। তারজন্য দলের একবারের নীচুতলার কর্মী ও নেতাদের কি করতে হবে, তা এই বৈঠকে বলা হয়েছে। সবাই নিজের নিজের কথা বলেছেন। সবার কথা শোনা হয়েছে।’

বিজেপির জেলা সভাপতি লক্ষণ ঘোড়ুই বলেন, ‘২০০-এর বেশি আসন পেতে হলে প্রয়োজন মজবুত সংগঠন। যা আমাদের রয়েছে। আমাদের দল বেড়েছে। আমাদের সৌভাগ্য অরবিন্দ মেনন নিজে সরেজমিনে খতিয়ে দেখলেন এই জেলায় সংগঠন কোনও অবস্থায় রয়েছে। সংগঠনের বুথ, শক্তিকেন্দ্র, যুব ও মহিলা মোর্চা সহ সব কমিটির সদস্যদের সঙ্গে তিনি কথা বলেছেন। কুলটি ও বারাবনি মণ্ডলের কর্মীদের তাঁর কথা হয়েছে। কর্মীদের তিনি উজ্জিবীত করেছেন ও সংগঠন বাড়াতে উৎসাহ দিয়েছেন।’

লক্ষণ ঘোড়ুই বলেন, ‘এই বৈঠকে সর্বভারতীয় সম্পাদক অরবিন্দ মেনন কর্মীদের দায়িত্ব দিয়েছেন জেলায় ৯টি বিধানসভা কেন্দ্রেই আমাদের জয়লাভ করতে হবে বলে। যেন তৃণমূল কংগ্রেসকে হঠিয়ে আমরা ৯-০ করতে পারি। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি আসানসোলে বিশাল রোড শো ও সভা হবে বিজেপির। সেখানে আসানসোলের সাংসদের সঙ্গে থাকবেন শুভেন্দু অধিকারীও। ওইদিন আসানসোলের অন্য রাজনৈতিক দলের অনেক বড় বড় নেতা বিজেপিতে যোগ দেবেন। তবে কারা যোগ দেবেন এখনই জানাচ্ছি না।’ চমক থাকবে বলে দাবি করেছেন বিজেপির জেলা সভাপতি।