ক্ষমতায় এলে নিচুতলার কিছু পুলিশের অবস্থা খারাপ হবে, হুশিয়ারি শুভেন্দুর

62

রামপুরহাট: ‘এই জেলার নিচুতলার পুলিশের অবস্থা খুব খারাপ হবে ফল বের হওয়ার পরে। কারণ এখানকার কিছু বাছাই করা পুলিশ অফিসার বিজেপি কর্মীদের এত গাঁজার মামলা দিয়েছে, যদিও সারা ভারতে এত গাঁজার চাষ হয় না।’ রবিবার মল্লারপুরে নির্বাচনি জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এভাবেই হুংকারের সুর চড়ালেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

শনিবার রামপুরহাট গান্ধীপার্কে প্রথম সভা করেন শুভেন্দু অধিকারী। রামপুরহাট বিধানসভার দলীয় প্রার্থী শুভাশিস চৌধুরীর সমর্থনে এই করেন তিনি। পরে তারাপীঠে হাঁসন বিধানসভা কেন্দ্রের দলীয় প্রার্থী নিখল বন্দ্যোপাধ্যায়, এবং মল্লারপুরে ময়ূরেশ্বর বিধানসভার দলীয় প্রার্থী শ্যামাপদ মণ্ডলের সমর্থনে সভা করেন তিনি। এদিন মল্লারপুরে বক্তব্য রাখতে গিয়ে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘এখানে একজন মোটা মুখ্যমন্ত্রী আছে। তাঁর কোনও ক্ষমতা নেই। নিরাপত্তারক্ষী তুলে নিলে তিনি কিছুই না। তাঁর নির্দেশে মহম্মদ আলির মতো কিছু পুলিশ অফিসার বিরোধীদের গাঁজার কেস দিয়েছে। অসৎ উপায়ে কোটি কোটি টাকা উপার্যন করেছেন। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

- Advertisement -

এদিন অভিযোগের সুরে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘কেন্দ্রের দেওয়া বিভিন্ন প্রকল্পের নাম বদলে দিয়েছে পিসির সরকার। সবুজসাথী সাইকেল তফসিলি জাতিদের উন্নয়নের টাকা। আমরাও সাইকেল দিতাম। আমরা সাইকেলের কারখানা খুলে দিতাম। তাহলে কিছু কর্মসংস্থান হত। উৎপাদিত সাইকেল কম দামে পাওয়া যেত। কিন্তু এই সাইকেল সাপ্লাই দেয় তোলাবাজ ভাইপোর শ্যালিকাকে যে বিয়ে করেছে তাঁর বাবা। প্রত্যেক সাইকেলে চারশো টাকা করে কমিশন আছে। আর পাঁচশো টাকা করে খরচ না করলে কোনও ছেলেমেয়ে ওই সাইকেলে চড়তে পারে না। অথচ এই টাকা কেন্দ্রের দেওয়া তফসিলিদের উন্নয়নের টাকা। এই মুখ্যমন্ত্রীর জন্য কৃষকরা ছয় হাজার টাকা করে বছরে পায়নি। আমরা ক্ষমতায় এলে প্রত্যেক কৃষকের খাতায় ১৮ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে।’