swine flu? অহেতুক ভয নয, প্রযোজন কিছু জরুরি সচেতনতার। পরামর্শ দিচ্ছেন
ডাঃ দীপঙ্কর সরকার

ডাঃ দীপঙ্কর সরকার
ডাঃ দীপঙ্কর সরকার

মাঝে-মাঝেই আমাদের রাজ্যে swine flu নিযে আতঙ্ক ছড়ায। এই তো, সম্প্রতি শোনা গেল, এই অসুখে মারা গেলেন এক বৃদ্ধা। তাই রোগটি নিযে অবহেলা নয মোটেও। আবার অহেতুক আতঙ্কিত হওযারও কোনো কারণ নেই। দরকার সচেতনতা। সোযাইন ফ্লু আসলে একধরনের ভাইরাল ফিভার। বিপজ্জনক ইনফ্লুযে্জা বলা যায। এই ভাইরাস প্রথমে শুযোরদের আক্রমণ করলেও সেখানে কোনো উল্লেখযোগ্য উপসর্গ প্রকাশ পায না। তবে শুযোর থেকে তারা অচিরেই ছড়িযে পড়তে পারে মানুষের শরীরে। আবার এই সংক্রমণ যেহেতু বাতাসবাহিত, তাই একজনের হলে তার হাঁচি, কাশি, নিঃশ্বাস প্রভতি থেকে এই ভাইরাস ছড়িযে পড়ে অনেকের শরীরে।
এমনিতে দেখতে গেলে সাধারণ জ্বরের সঙ্গে এই অসুখের বিশেষ কোনো তফাত নেই। এটি আসলে ইনফ্লুযে্জা ভাইরাসের সাবটাইপ এইচ১ এন১ নামের একটি বিশেষ ভাইরাস। এই অসুখে জ্বরের সঙ্গে সঙ্গে সর্দিকাশি, হাতেপাযে ব্যথা, মাথার যন্ত্রণা থাকে। পেটেও ব্যথা হতে পারে। বমি বা ডাযরিযার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু সাধারণ এই অসুখ হবু মা, বযস্ক মানুষ ও শিশুদের ক্ষেত্রে হযে ওঠে মারাত্মক। ভযংকর হযে উঠতে পারে অ্যাজমা বা সিওপিডি রোগীদের ক্ষেত্রে। আইএলডি-র মতো ফুসফুসের অসুখ, ক্যানসার বা এইডস রোগীদের জন্য সোযাইন ফ্লু অত্যন্ত বিপজ্জনক। বিশেষ এই ধরনের রোগীর ক্ষেত্রে সোযাইন ফ্লু হলে দেরি না করে চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে হবে। প্রযোজনে ভরতি হতে হবে হাসপাতালে।
সোযাইন ফ্লুর ভ্যাকসিন আছে। কোথাও সোযাইন ফ্লু দেখা দিলে এলাকার শিশু, বযস্ক বা যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম, তাদের এই ভ্যাকসিন নেওযা িউচত। অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন তার আগে। কোথাও এই অসুখটি মহামারী আকারে দেখা দিলে সকলেই এই ভ্যাকসিন নিলে ভালো হয।
উপযুক্ত চিকিত্সার পর সোযাইন ফ্লু ভালো হযে যায। তাই আতঙ্কের কিছু নেই। তবে দরকার প্রযোজনীয সচেতনতার। আর হ্ঁযা, চিকিত্সকের পরামর্শ মানতেই হবে।
যোগাযোগ ঃ 9836017501