মণিকাকে শোকজ টিটি ফেডারেশনের

টোকিও : অলিম্পিকের মঞ্চে জাতীয় কোচকে উপেক্ষা ও অপমানের ইস্যুতে বেকায়দায় মণিকা বাত্রা। বুধবার বৈঠক করে তাঁকে শোকজের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় টিটি ফেডারেশন। জবাব দেওয়ার জন্য ১০ দিন রয়েছে অর্জুন পুরস্কারপ্রাপ্ত এই প্যাডলারের হাতে। পাশাপাশি এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে জাতীয় দলের হয়ে খেলার সময় ব্যক্তিগত কোচকে সঙ্গে রাখার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে অলিম্পিক টিটির তৃতীয় রাউন্ডে খেলার রেকর্ড গড়ে দেশে ফিরেছেন মণিকা। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে টোকিওয় জাতীয় কোচ সৌমদীপ রায়কে উপেক্ষা ও অপমানের মতো গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। ব্যক্তিগত কোচ সন্ময় পরাঞ্জপেকে ম্যাচের সময় পাশে চেয়েছিলেন তিনি। সেই আবেদন অলিম্পিক আয়োজকরা মঞ্জুর না করায় ম্যাচের সময় জাতীয় কোচের সাহায্য নিতে রাজি হননি। বিষয়টি নিয়ে ওয়াকিবহাল থাকলেও তখন কোনও পদক্ষেপ করেননি টিটি কর্তারা। বরং গোটা স্কোয়াড দেশে ফেরার পর টিম ম্যানেজার এমপি সিং ও কোচ সৌমদীপের রিপোর্টের অপেক্ষায় ছিলেন তাঁরা। সেই রিপোর্টে মণিকার বিরুদ্ধে ওঠা শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে মান্যতা দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

রিপোর্ট নিয়ে এদিন ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠকে বসেন কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা। সেখানেই মণিকাকে শোকজ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ফেডারেশনের সচিব অরুণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মণিকা দেশকে গর্বিত করেছে। তবে কেউই নিয়মের উর্ধ্বে নন। তাই ওকে শোকজ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জাতীয় কোচের সঙ্গে এমন ব্যবহারের জবাব ওকে দিতে হবে। সেই উত্তর খতিয়ে দেখে কমিটি পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে। টিম ম্যানেজার ও কোচের রিপোর্ট বিপক্ষে থাকলেও আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিতেই মণিকাকে ১০ দিন সময় দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সচিব। উত্তর পছন্দ না হলে মণিকাকে দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তি দেওয়ার রাস্তায় যেতে পারে ফেডারেশন।

পাশাপাশি, ব্যক্তিগত কোচকে জাতীয় শিবির বা আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় প্রাধান্য না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফেডারেশন। পাশাপাশি জাতীয় শিবিরে যোগদান বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। শিবিরের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত প্যাডলারদের উপস্থিত থাকতে হবে। বিশেষ পরিস্থিতিতে আবেদন খতিয়ে দেখে প্যাডলারদের ছাড় দেওয়া হতে পারে। ২৮ সেপ্টেম্বর দোহায় এশিয়ান টিটি চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু। সেজন্য শীঘ্রই জাতীয় শিবির শুরু হবে। তার আগে মণিকা-বিতর্ক শেষ করতে চাইছে ফেডারেশন।