কোচ বিতর্কে শাস্তির খাঁড়া মণিকার ওপর

টোকিও : অলিম্পিকের মঞ্চে জাতীয় কোচ সৌমদীপ রায়কে উপেক্ষা করায় কড়া শাস্তির মুখে পড়তে পারেন তারকা প্যাডলার মণিকা বাত্রা। অন্যদিকে, ফের অঘটন ঘটাতে পারলেন না আচান্তা শরথ কমল। মঙ্গলবার পুরুষদের সিঙ্গলসে তৃতীয় রাউন্ডে চিনের মা লংয়ের কাছে ৭-১১, ১১-৮, ১১-১৩, ৪-১১, ৪-১১ সেটে হেরে বিদায় নিলেন তিনি।

ভারতের প্রথম মহিলা প্যাডলার হিসেবে অলিম্পিকের তৃতীয় রাউন্ডে পৌঁছে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন মণিকা। তবে তার থেকেও বড় বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন জাতীয় কোচকে উপেক্ষা করে। নিজের ব্যক্তিগত ইভেন্ট চলাকালীন বোর্ডের পাশে ব্যক্তিগত কোচ সন্ময় পরাঞ্জপেকে চেয়েছিলেন। কিন্তু সেই দাবি পূরণ না হওয়ায় জাতীয় কোচ সৌমদীপের সাহায্য নিতে রাজি হননি তিনি। যা ভালো চোখে দেখছে না জাতীয় টেবিল টেনিস সংস্থা। সচিব অরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য, মণিকা যা করেছে তা দৃষ্টিকটু ও অস্বস্তিকর। দেশের প্রথমসারির একজন ক্রীড়াবিদের থেকে এমন আচরণ কাম্য নয়। জাতীয় কোচকে উপেক্ষা করার অর্থ দেশকে অপমান করা। মঞ্চটা অলিম্পিক বলেই কড়া পদক্ষেপের ইঙ্গিত দিয়েছেন সচিব।

- Advertisement -

কেন এমন করলেন মণিকা? সচিবের কথায়, ও আমাদের অদ্ভত যুক্তি দিয়েছে। ওর মতে সৌমদীপ সুতীর্থার ব্যক্তিগত কোচ। তাই ও জাতীয় কোচের কাছে অনুশীলন করবে না। আমরা ৩১ জুলাই ফিরছি। তারপর দলের ম্যানেজার এমপি সিং এবং সৌমদীপ অলিম্পিক নিয়ে রিপোর্ট জমা দেবেন। তা নিয়ে আমরা অগাস্টের শুরুতে বৈঠকে বসব। সেখানেই মণিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। সংস্থা সূত্রে খবর, মণিকা সম্ভাব্য পদকজয়ী হওয়ায় তাঁকে কিছু বলা হয়নি এমন নয়। অলিম্পিকের আসরে দেশের সম্মানের কথা ভেবেই এতদিন কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।