চা বাগান ইস্যুতে সরব দার্জিলিংয়ের সাংসদ রাজু বিস্তা

87

মালবাজার: চা বাগান ইস্যু থেকে শুরু করে উত্তরবঙ্গের প্রতি রাজ্য সরকারের বঞ্চনা সহ বিভিন্ন বিষয়ে সরব দার্জিলিংয়ের সাংসদ রাজু বিস্তা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাল শহরের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের একটি ভবনে কর্মীসভায় রাজুবাবু জানান, রাজ্যে ক্ষমতায় যে সরকারই থাকুক এতদিন তারা উত্তরবঙ্গকে লুণ্ঠন করেছে। এবার বিধানসভা ভোটে উত্তরবঙ্গের দশা ও দিশা বদলাতে হবে।

এদিন কোচবিহারে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রা কর্মসূচিতে উপস্থিত থাকার পর রাজু বিস্তা সরাসরি মাল শহরের দলীয় কর্মীসভায় যোগ দেন। কর্মীসভায় উপস্থিত হয়ে তিনি জানান, রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ক্ষমতায় আসছে। বিজেপির এই জয়ে মাল বিধানসভা এলাকারও বড় অংশীদারিত্ব থাকতে হবে। দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি জানান, প্রতিটি বুথে ৩১ জন করে কার্যকর্তা প্রস্তুত থাকতে হবে। কোনও বুথে ৩১ জন না থাকলে ন্যূনতম ১১ জন কার্যকর্তা থাকতেই হবে। সাংসদের বক্তব্য, কেন্দ্র সরকার চা শ্রমিকদের হিতে নানা উদ্যোগ নিচ্ছে। চা শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ন্যূনতম পক্ষে সাড়ে তিনশো টাকা হবে। বনবস্তির বাসিন্দাদের মতো চা বাগানেও বিজেপি সরকার পাট্টা দেবে। কয়েকটি বাগান মিলে ইএসআই হাসপাতাল তৈরি করা হবে। সেখানে চিকিৎসা পরিকাঠামোর সুবন্দোবস্ত থাকবে। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড প্রসঙ্গে সাংসদ জানান, স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড রেখে কোনও লাভ নেই। এখন এখানে হাসপাতালে ভালো পরিষেবাই মেলে না। ব্লক স্তরে হাসপাতালে আইসিইউ, ভেন্টিলেশন ব্যবস্থা সহ অন্যান্য পরিকাঠামো নেই। ভালো চিকিৎসক নেই। রাজ্যের বাইরে থাকা পরিযায়ী শ্রমিক এবং পড়ুয়ারা স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে কোনও পরিষেবা পাবেন না। তাঁর অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা দেখে এই রাজ্যে আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প চালু হতে দেওয়া হয়নি। তবে এটা বুঝে নিতে হবে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনেও নরেন্দ্র মোদি জনপ্রিয় ছিল। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে জনপ্রিয়তা বেড়েছে। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রাজুবাবু বলেন, ‘পূর্বে বিমল গুরুং বড় নেতা থাকলেও তৃণমূল কংগ্রেস-এর হাত ধরে তা হারিয়েছেন। পাহাড়ের মানুষ তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে নেই। তারা তৃণমূল কংগ্রেসের অত্যাচার দেখেছেন।’ সেবকের দ্বিতীয় সড়ক সেতু তৈরির দাবি প্রসঙ্গে রাজু বিস্তার দাবি, কেন্দ্র সরকার ইতিমধ্যে দ্বিতীয় সড়ক সেতু তৈরির প্রকল্প নিয়েছে। রাজ্য সরকারই ডিপিআর তৈরি করছে না। এদিনের সভায় সভাপতিত্ব করেন মাল শহরের বিজেপি নেতা পঙ্কজ তিওয়ারি। এদিন সভায় মাল শহর সহ বিভিন্ন এলাকার বিজেপির দলীয়-নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

- Advertisement -