টানাপোড়েনের ৩ মাস পর কাজে যোগ চা শ্রমিক কর্মচারীদের

92

বীরপাড়া: অবশেষে বাগান খোলার তিন মাস পর কাজে যোগ দিলেন বীরপাড়া চা বাগানের জটেশ্বর ডিভিশনের শ্রমিক কর্মচারীরা। প্রসঙ্গত, ডানকানের বীরপাড়া চা বাগানটি মেরিকো টি কোম্পানির হাত ধরে খোলার প্রক্রিয়ার বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে এতদিন কাজে যোগ দেননি ওই ডিভিশনের সাতশোর বেশি শ্রমিক কর্মচারী। অনেক টানাপোড়েনের পর অবশেষে শনিবার কাজে যোগ দেন তাঁরা।

সম্প্রতি, মাদারিহাটের বিডিও অফিসে ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বারলা ও মাদারিহাটের বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গাও। এরপর শনিবার কাজে যোগ দিলেন শ্রমিক কর্মচারীরা। এর আগে তাঁরা শুক্রবার মাদারিহাটের বিডিও শ্যারণ তামাংয়ের কাছে কয়েক দফা দাবি পেশ করেন।

- Advertisement -

এদিকে, শনিবারও জটেশ্বর ডিভিশনের বিজেপির গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য মহাদেব বাগোয়ার বলেন, ‘লকডাউনের মধ্যে বাধ্য হয়ে শ্রমিকরা কাজে যোগ দিলেন। কারণ চা পাতা তুলে বিক্রি করতে দেওয়া হচ্ছে না। অন্য কোথাও কাজও মিলছে না। তবে চা বাগানের মালিকানা হাতবদলের প্রক্রিয়াই বেআইনি ও অবৈধ। এর তদন্ত হওয়া উচিত।’

চা বাগান তৃণমূল কংগ্রেস মজদুর ইউনিয়নের সদস্য উত্তম সাহা বলেন, ‘বাগানের মালিকানা হাতবদলের চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেছেন বিজেপি নেতা তথা বিধায়ক মনোজ টিগ্গাও। বিজেপির নেতাদের সমন্বয়ের অভাবেই তিন মাস ধরে কাজে যোগ দিতে পারেননি ওই ডিভিশনের শ্রমিক কর্মচারীরা।’

বিধায়ক মনোজ টিগ্গা বলেন, ‘এক্ষেত্রে বিজেপির ওপর দায় চাপালে চলবে না। এটা মালিকপক্ষ শ্রমিকপক্ষের ব্যাপার। মহাদেববাবু স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। তিনি শ্রমিকদের পক্ষেই রয়েছেন।’

মেরিকো টি কোম্পানির ডিরেক্টর সুরজিৎ বকসি জানান, শ্রমিক কর্মচারীদের দাবিগুলি খতিয়ে দেখা হবে। শনিবার যাঁরা কাজে যোগ দিয়েছেন সোমবার তাঁদের প্রত্যেককে এক হাজার টাকা করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।