শিক্ষক শিল্পীর হাতে সেজে উঠছে দশভুজা

63

দীপঙ্কর মিত্র, রায়গঞ্জ: পেশায় প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক। যদিও বছরভর একাধিক দেব-দেবীর প্রতিমা গড়ে তোলাই নেশা রায়গঞ্জের মিলনপাড়ার বাসিন্দা সুব্রত অধিকারীর। এবছরও তার অন্যথা হয়নি। তিল তিল করে গড়ে তুলছেন দুর্গা প্রতিমা। সেক্ষেত্রে একপ্রকার ব্যস্ততা তুঙ্গে সুব্রতবাবুর। তবে বাণিজ্যিক স্বার্থে নয়। সুব্রতবাবুর হাতে গড়া প্রতিমার বেশিরভাগই সাজিয়ে রাখা থাকে তাঁর বাড়িতেই। কখনও আবার কারও দাবি মেনে উপহার হিসেবে পরিচিতদের হাতে তুলে দেন তাঁর শিল্পকর্ম।

হাতে–কলমে কখনও মূর্তি তৈরির প্রশিক্ষণ না নিলেও, প্রায় বছর ৩০ যাবৎ একের পর প্রতিমা গড়ে তুলছেন তিনি। শিক্ষকতার ফাঁকে রাত জেগেই চলে তাঁর এই শিল্পকর্ম। যা নজর কাড়ে আট থেকে আশি সকলেরই। শুধু প্রতিমা গড়া নয়, সমান দক্ষ শোলা শিল্পেও। এছাড়াও লোকসঙ্গীত শিল্পী হিসেবে বিশেষ পরিচিতি রয়েছে তাঁর। সুব্রতবাবুর স্ত্রী মাধুমিতাদেবী জানান, মাটির প্রতিমা গড়া স্বামীর নেশা। শিল্পীদের গড়া প্রতিমা দেখতে জেলার বিভিন্ন মণ্ডপে ছুটে যান তিনি।

- Advertisement -

এখনও অবধি সুব্রতবাবু গড়েছেন সর্বোচ্চ তিন ফুট এবং সর্বনিম্ন পাঁচ ইঞ্চির দুর্গা প্রতিমা। এছাড়াও লক্ষ্মী, সরস্বতী, কালি প্রতিমা গড়েছেন। জানা গিয়েছে, গত বছর সুব্রতবাবুর হাতে গড়া দুর্গা প্রতিমা পূজিত হয়েছিল ভাটোলে গ্রামে।