কঞ্চির কলম নিয়ে মজে আছেন মাস্টারমশাই

432

মনজুর আলম, চোপড়া : ডিজিটাল যুগেও সমাদৃত মাস্টারমশাইয়ের কঞ্চির কলম। বর্তমান সময়ে তাঁর হাতের লেখার জুড়ি মেলা ভার। অবসরে মাস্টারমশাইয়ে সঙ্গী কঞ্চির কলম। ৭৩ বছর বয়সে মাস্টারমশাই এখনও দিব্যি মজে আছেন কঞ্চির কলমে। সকালে রুটিন করে লিখতে বসেন। কঞ্চি কলম দিয়ে ঝরঝরে হাতের লেখায় এলাকায় সুনাম রয়েছে মাস্টারমশাইয়ের। এলাকায় তিনি কঞ্চি কলমের মাস্টারমশাই নামেই পরিচিত।

চোপড়া ব্লকের সোনাপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের লক্ষ্মীডাঙ্গি প্রাইমারি স্কুলের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দেবেন্দ্রনাথ সিংহ। কলাপাতার খাতায় কঞ্চি কলমে ঝরঝরে হাতের লেখায় তিনি এলাকায় অনেক আগে থেকে পরিচিত। একদশক আগেও বিয়ের কার্ড হোক বা অন্য কোনো আমন্ত্রণপত্র, মাস্টারমশাইয়ের লেখাতেই শুভারম্ভ করতেন গ্রামবাসীরা। ক্লাব, সংগঠন এমনকি সরকারি অফিসের সার্টিফিকেট বা মানপত্র লিখতে মাস্টারমশাইয়ে কাছে ভিড় জমাত। এখনও অনেকেই বাড়িতে আসেন। লিখে নিয়ে যান। এতে বরং আনন্দই পান তিনি। ডিজিটাল যুগেও সমাদৃত কঞ্চির কলম। সুন্দর হাতের লেখার জন্য জাতীয় শিক্ষক কল্যাণ সংস্থার শংসাপত্র পেয়েছেন দেবেন্দ্রনাথবাবু। জেলা প্রশাসন শংসাপত্র ও সংবর্ধনা দিয়েছে। ইসলামপুর প্রেস ক্লাব থেকে দেওয়া হয় একলব্য পুরস্কার ও মানপত্র।

- Advertisement -

লিখতে বসলেই ১০-১২টি কঞ্চির কলম সঙ্গে থাকে। এখন অবশ্য কলাপাতার খাতা নেই। কাগজেই লেখেন তিনি। নিজের হাতে কঞ্চির কলম তৈরি করেন। বাড়িতেই বানিয়ে ফেলেন কালি। বল পেন বা জেল পেন দিয়ে লেখা নাপসন্দ তাঁর। ভাজা চালের গুঁড়ো, কেশরিপাতার রস ও হাঁড়ির কাজল মিশিয়ে নিজেই কালি তৈরি করেন তিনি। বেশ কয়েকটি কঞ্চি কলমের মধ্যে মুক্তোর মতো বাংলা ভাষার বর্ণমালাকে ফুটিয়ে তোলেন তিনি। লেখার লাইন মোটা মিহি করার জন্য আলাদা আলাদা কলম। শিরোনাম লেখার জন্য কোন কলম হাতে ধরতে হবে এটা যেন নখদর্পণে মাস্টারমশাইয়ে। চুচুয়াডাঙ্গি গ্রামের বাসিন্দা দেবেন্দ্রনাথবাবুর ছেলে বাসুদেব সিংহ বলেন, ‘বাবা অবসরে কঞ্চির কলম নিয়ে এই বেশ ভালো আছেন।’ স্ত্রী বীণারানি সিংহ বলেন, ‘শুরু থেকেই দেখে আসছি একমাত্র কঞ্চির কলম ছাড়া অন্য কলম ব্যবহারই করেন না।’ দেবেন্দ্রনাথবাবু জানান, হারিয়ে যাওযা কঞ্চি কলম কলাপাতার খাতার মধ্যে আজও তিনি তা আঁকড়ে রেখেছেন একমাত্র ভালোবাসার টানে। এখন মাঝেমধ্যে কবিতা লেখেন, জীবনের ইতিবৃত্ত লেখেন। ছেলেরা এই কঞ্চি কলমের লেখা ফেসবুকে তুলে ধরেন। অবসরে কঞ্চির কলম নিয়ে এই বেশ ভালো আছি বলেন মাস্টারমশাই।