ঐতিহাসিক সিরিজ জিতে রাহানে-শাস্ত্রীর চোখে জল

459

ব্রিসবেন: ৩২ বছরে প্রথম দল হিসেবে গাব্বায় অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে ভারত। সেটাও আবার দলের এক নম্বর ব্যাটসম্যান, প্রধান অলরাউন্ডার আর সেরা বোলারদের ছাড়াই। এমন জয়ের পর দলের পাশাপাশি দুই অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবং আজিঙ্কা রাহানের প্রশংসা শোনা গিয়েছে হেড কোচ রবি শাস্ত্রীর মুখে। অন্যদিকে, এদিন জয়ের পর শাস্ত্রীর চোখে জল আসতেও দেখা গিয়েছে। যা নিয়ে এই প্রাক্তন জাতীয় ক্রিকেটার বলেন, আমি সহজে আবেগপ্রবণ হই না। কিন্তু এদিন সত্যিই আমার চোখে জল চলে আসে। ইতিহাসের পাতায় এই দল আর এই সিরিজ থেকে যাবে। করোনা, চোট-আঘাতের বিষয়টি মাথায় রাখলে, ৩৬ রানে অলআউট হওয়ার পর এভাবে সিরিজ জেতাটা কতটা কঠিন তা বোঝা যায়।

- Advertisement -

কোহলি-পান্ডিয়া, সামি-বুমরা, আশ্বীন-জাদেজাকে ছাড়াই গাব্বায় জিতেছে ভারত। এই প্রসঙ্গে শাস্ত্রী বলেন, ছেলেদের এমন খেলা দেখে আমি বাকরুদ্ধ। এই দলের চারিত্রীক দৃঢ়তা অসাধারণ। বিশেষত অ্যাডিলেডে ৩৬ রানে গুটিয়ে যাওয়ার পর দল যেভাবে উঠে দাঁড়িয়েছে তা প্রশংসাযোগ্য। তবে এই দলটা রাতারাতি গড়ে ওঠেনি। বিরাট এখানে না থেকেও দলের সঙ্গে সবসময় থেকেছে। বিরাটের থেকে এই দলের অন্যরা লড়তে শিখেছে। আর রাহানেকে বাইরে থেকে যতটা শান্ত মনে হয়, ভেতরে ভেতরে ও ততটাই দৃঢ়। পন্থের প্রশংসা করে তিনি বলেছেন, বিদেশের মাটিতে পন্থ একজন ম্যাচ উইনার। ওর কিপিং নিয়ে সমালোচনা হয়। কিন্তু এমন ম্যাচ বের করার ক্ষমতা আছে ওর। সিডনিতে আর কিছুটা সময় ও ব্যাট করলে সেদিনও আমরা জিততাম। এমন দক্ষতার জন্যই আমরা পন্থকে সুযোগ দিই। একইসঙ্গে দলের নতুন সদস্যদের অবদানের কথাও বলেছেন শাস্ত্রী। তাঁর কথায়, ওয়াশিংটন সুন্দর, টি নটরাজনরা নেট বোলার হিসেবে এসেছিল। কিন্তু ওরা সুযোগটা দারুণভাবে কাজে লাগিয়েছে। শার্দূল ঠাকুরও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতা দারুণভাবে কাজে লাগিয়েছে।

এদিন অধিনায়ক রাহানের চোখেও জল দেখা গিয়েছে। যা নিয়ে পরে তিনি বলেন, আমি জানি না ঠিক কী হয়েছিল, কেন এমন হল। তবে আমি আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি। এই জয় ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়। এই জয়ে সবার অবদান আছে। বিশেষত যেভাবে আমরা অ্যাডিলেড টেস্টের পর ঘুরে দাঁড়িয়েছি। দলে আসা প্রত্যেকেই জয়ে অবদান রেখেছে। দলের তরুণ ক্রিকেটারদের পাশাপাশি দুই সিনিয়ার চেতেশ্বর পূজারা আর রবিচন্দ্রণ অশ্বীনের প্রশংসা শোনা গিয়েছে দ্বিতীয় ভারতীয় ও এশিয়ান অধিনায়ক হিসেবে অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট সিরিজ জয়ী রাহানের মুখে।