নিখোঁজের দশদিন পর মায়ের মৃতদেহের খোঁজ পেল ছেলে

389

রায়গঞ্জ: নিখোঁজের দশদিন পর রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পুলিশ মর্গে মিলল মায়ের মৃতদেহ। রবিবার উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ থানার মহারাজা হাট থেকে মায়ের খোঁজ করতে রায়গঞ্জ মেডিকেলে যান ছেলে। এরপর মর্গে মেলে মায়ের মৃতদেহ।

জানা গিয়েছে, কয়েকদিন আগে রায়গঞ্জ থানার বারদুয়ারি এলাকার ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের ধার থেকে অজ্ঞাত পরিচয় মহিলার রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর যায় রায়গঞ্জ থানায়। রায়গঞ্জ থানার পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেলের পুলিশ মর্গে পাঠিয়েছিল। পরিচয় না জানার জন্য মৃতদেহ সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছিল মর্গে। গতকাল রায়গঞ্জ থানায় নিখোঁজ মহিলার অভিযোগ করতে গেলে পুলিশ তাঁর ছেলেকে হাসপাতালে খোঁজ নেওয়ার পরামর্শ দেয়। এরপর হাসপাতালে গিয়ে মায়ের খোঁজ পান ছেলে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে মৃত ওই মহিলার নাম বাসন্তী দেবী যাদব (৪২)। বাড়ি রায়গঞ্জ থানার রামপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের মহারাজা হাট এলাকায়। মৃতের ছেলে পবন যাদব বলেন, ‘আমি ভিন রাজ্যে শ্রমিকের কাজ করি। এলাকাবাসীর মারফত জানতে পারি উত্তরবঙ্গ সংবাদে এক নিখোঁজ মহিলার মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। এদিকে আমার মা ও দশদিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন। আত্মীয়ের বাড়িতে ফোনাফোনি করেও হদিস না পেয়ে অবশেষে রায়গঞ্জ থানার দ্বারস্থ হই। গতকাল মায়ের মৃতদেহ রায়গঞ্জ মেডিকেলের মর্গে দেখতে পাই।’

- Advertisement -

রায়গঞ্জ মেডিকেলের সহকারি অধ্যক্ষ প্রিয়ঙ্কর রায় বলেন, ‘দীর্ঘ কয়েকদিন ধরেই অজ্ঞাত পরিচয় হিসেবেই মৃতদেহ পড়েছিল। এদিন পরিবারের লোকেরা মৃতদেহ শনাক্ত করার পর ময়নাতদন্ত করে পরিবারের হাতে তুলে দেয় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।’ রায়গঞ্জ থানার আইসি সুরোজ থাপা বলেন, ‘লরির ধাক্কায় মৃত্যু হয় ওই মহিলার।’ রায়গঞ্জ থানায় একটি মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করে পুলিশ।