সিভিক ভলান্টিয়ার ও জনতার খণ্ডযুদ্ধ, উত্তেজনা কোচবিহারে

458

কোচবিহার, ২৪ অক্টোবরঃ সিভিক ভলান্টিয়ার ও জনতার খণ্ডযুদ্ধে উত্তপ্ত হয়ে উঠল কোচবিহার। বৃহস্পতিবার দুপুরে হরিশপাল চৌপথির নো এন্ট্রিতে একটি টোটো ঢুকে পড়লে তাতে বাধা দেন সিভিক ভলান্টিয়ার। জানা গিয়েছে, টোটোতে একজন রোগী থাকায় সেই জায়গা দিয়েই যেতে চান টোটোচালক। কিন্তু তা সত্ত্বেও বাধা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এই নিয়ে শুরু হয় বচসা। সেই টোটোর বৈদ্যুতিক তারগুলি সিভিক ভলান্টিয়ার ছিঁড়ে দেন বলে অভিযোগ ওঠে। তখনই ক্ষিপ্ত হয়ে সিভিক ভলান্টিয়ারকে মারধর করেন টোটোচালক। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় কোতোয়ালি থানার পুলিশ। তারা টোটো চালককে গ্রেফতার করতে গেলে সেখানে উপস্থিত জনতার সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ বাঁধে পুলিশ ও সিভিক কর্মীদের। ক্ষিপ্ত জনতা মারধর করতে শুরু করে সিভিক ভলান্টিয়ারদের। ছবি তুলতে গেলে বাধা দেওয়া হয় সাংবাদিকদেরও। পরে কোতোয়ালি থানার বেশ কয়েকজন পুলিশ আধিকারিক সহ বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই বিষয়ে টোটো চালক আবুল হোসেন বলেন, ‘একজন রোগী ছিল টোটোতে। তাই নো এন্ট্রি দিয়ে ঢুকিয়ে দিয়েছিলাম। একজন সিভিক ভলান্টিয়ার এসে দুর্ব্যবহার শুরু করে এবং আমার টোটোর তার ছিড়ে দেয়।’ সিভিক ভলান্টিয়ার দীপক বর্মন বলেন, ‘নো এন্ট্রিতে টোটোটি ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সেইজন্য আমি বাধা দিই। তখন আমাকে মারধর করা হয়।’ যদিও স্থানীয়দের অভিযোগ, নো এন্ট্রিতে ঢুকিয়ে দেওয়ার জন্য টোটোচালককে বাধা দেওয়া পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল। কিন্তু টোটোর সমস্ত তারগুলো ছিড়ে দেওয়া সিভিক ভলান্টিয়ারের উচিত হয়নি। ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।