অর্থাভাবে থমকে চিকিৎসা, বিধায়কের তৎপরতায় স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড পেলেন রসিদা

75

আসানসোল: লিভারে টিউমার। অর্থাভাবে থমকে চিকিৎসা। এমতবস্থায় বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়ের তৎপরতায় দুয়ারে সরকার প্রকল্পের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড হাতে পেয়ে খুশি রশিদা খাতুন সহ তাঁর পরিবার। ধন্যবাদ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ বিধায়ক এবং ব্লক নেতৃত্বদের।

আসানসোলের সালানপুর ব্লকের দেন্দুয়া গ্রামের বাসিন্দা রসিদা খাতুন। দীর্ঘদিন ধরেই লিভারে টিউমার নিয়ে ভুগছেন তিনি। প্রয়োজন অস্ত্রোপচার। যদিও বাধ সাধছে আর্থিক প্রতিবন্ধকতা। স্বাভাবিকভাবেই থমকে রয়েছে চিকিৎসা। এমতবস্থায় চিকিৎসার খরচ জোগাতে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের জন্য ফর্ম জমা দেন রসিদা। যদিও কূপন আসতে দেরি হচ্ছিল বলে অভিযোগ। এদিকে দিনের পর দিন তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকায় উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেন পরিবারের সদস্যরা। বিষয়টি নজরে আসতেই উদ্যোগ নেন বারাবনির বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়।  ঘটনার দু’দিনের মধ্যেই বিডিও অফিসের তরফে স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড হাতে পান রসিদা খাতুন।

- Advertisement -

রসিদা খাতুন বলেন, ‘আমি আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া গরীব পরিবারের মানুষ। অর্থের অভাবে কোথাও গিয়ে নিজের চিকিৎসা করাতে পারিনি। অনেক কষ্টের মধ্যে ছিলাম। নিজের অসুবিধার কথা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাদের কাছে জানিয়েছিলাম। এবার স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে কলকাতায় গিয়ে বিনামূল্যে বড় বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে পারব।‘

বিধায়ক বিধান উপাধ্যায় বলেন, ‘স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড হাতে পেয়েছেন রসিদা। এবার চিকিৎসার জন্য তাঁকে কলকাতা পাঠানোর চেষ্টা করা হবে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের তরফে। আমরা সারা বছর এইভাবেই মানুষের পাশে থাকি। অন্য রাজনৈতিক দলের মত ভোট পাখি হয়ে হঠাৎ আসি না।‘