শিলিগুড়ি, ১৪ ফেব্রুয়ারিঃ ১০ বছর ধরে বেহাল অবস্থায রয়েছে ডন বসকো রোড ও ইস্টার্ন বাইপাসের সংযোগকারী ঠাকুর পঞ্চানন বর্মা রোড। প্রায় এক কিলোমিটার দীর্ঘ এই রাস্তার বিভিন্ন অংশে বড়ো বড়ো গর্ত তৈরি হওয়ায় সমস্যায় পড়ছেন পথচারীরা। পিচের প্রলেপ উঠে যাওযার ফলে সবসময় ধুলো উড়ছে। লাগাতার ধুলোর ফলে এলাকায় অসুস্থ হযে পড়ছেন অনেকেই। স্থানীয়দের অভিযোগ, রাস্তার এই সমস্যার ব্যাপারে ওয়ার্ড কাউন্সিলারের কাছে একাধিকবার অনুরোধ করা হলেও কাজের কাজ কিছু হয়নি।

পুরনিগমের ৪২ নম্বর ওযার্ডের ঠাকুর পঞ্চানন বর্মা রোডে বেশ কযেটি গুদাম রয়েছে। কয়েকটি অ্যাপার্টমেন্টও রয়েছে এই রাস্তায়। এছাড়া ইস্টার্ন বাইপাস দিযে এই রাস্তায় ঢুকতেই বেশ কয়েকটি দোকান আছে। এর ফলে সারাদিনে বহু মানুষ এই রাস্তাটি ব্যবহার করেন। এলাকায় একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হস্টেল থাকার পাশাপাশি নার্সিং ট্রেনিং সেন্টার রয়েছে। রাস্তার আশপাশে আরো বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থাকায় সারাদিনে বহু পড়ুয়াও এই রাস্তাটি ব্যবহার করে।

বছর দশেক আগে শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি উন্নযন কর্তপক্ষের (এসজেডিএ) উদ্যোগে রাস্তার সংস্কার করা হয়েছিল। তারপরে আর কোনও কাজ হযনি বলে অভিযোগ। পুরো রাস্তা উঁচু-নীচু হযে গিয়েছে। গোটা রাস্তায় পিচের চিহ্নও নেই। গাড়ি যেতেই চারিদিকে ধুলো উড়ছে। স্থানীয বাসিন্দা রঞ্জন পাল বলেন, ‘সারাদিন ধুলো ওড়ায় শ্বাসকষ্ট হচ্ছে।’ এমনকি সামান্য বৃষ্টিতে পুরো রাস্তা পুকুর হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন এলাকার আরেক বাসিন্দা নিখিলকুমার মন্ডল। তিনি বলেন, ‘সামনেই ডাম্পিং গ্রাউন্ড থাকায় সামান্য বৃষ্টি হলে ওই এলাকার জল রাস্তায় চলে আসে। রাস্তায় জল জমে থাকায় পুরো এলাকায দুর্গন্ধময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দা দেবাশিস রায় বলেন, রাস্তা দিয়ে এমনিতেই বড়ো বড়ো গাড়ি যায়। এরমধ্যেই রাস্তার যে অবস্থা তাতে অবস্থা আরো বেগতিক হয়ে উঠছে। উল্টোদিকের রাস্তা ঠিক থাকলেও এই রাস্তাটির প্রতি কেন নজর দেওয়া হচ্ছে না, সেটাই বোঝা যাচ্ছে না। ওয়ার্ড কাউন্সিলারের কাছে এ বিষযে নজর দেওযার অনুরোধ করা হলেও আশ্বাস ছাড়া কিছু মিলছে না। ওয়ার্ড কাউন্সিলার দিলীপ সিং বলেন, ‘রাস্তাটি পূর্ত দপ্তরের আওতায় রয়েছে। দ্রুতই রাস্তাটির সংস্কারের কাজ শুরু হবে।’