ভোট মিটতেই শ্মশানের শূন্যতা, বিজেপি কার্যালয় যেন এখন ডাস্টবিন

266

চোপড়া: একুশের বিধানসভা নির্বাচনে চোপড়ায় বিজেপি প্রার্থী পরাজিত হওয়ার পর থেকেই দলের ব্লক কার্যালয়ের গণ্ডি মাড়াতে চাইছেন না কর্মী-সমর্থকরা। যেখানে ভোটের সময় দিনভর কর্মী-সমর্থকদের ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা মিলত না, সেখানে এখন শ্মশানের নিস্তব্ধতা। এক কথায় বলা চলে, মাত্র সাড়ে চার মাসের ব্যাবধানে বিজেপির দলীয় কার্যালয় কার্যত ডাস্টবিনে পরিণত হয়েছে। দিনভর খোলা থাকছে দরজা-জানালা। অন্যদিকে, ব্লক কার্যালয়ে আসবাবপত্র বলতেও কিছু নেই। এই পরিস্থিতিতে সেখানে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের একাংশ আবর্জনা ফেলছেন বলে জানা গিয়েছে। বিজেপির অভিযোগ, বিধানসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই এলাকায় আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি করেছে তৃণমূল। এখনও অনেকেই ঘর ছাড়া রয়েছেন। দলীয় কার্যালয়ে হামলা থেকে শুরু করে এলাকার গুদরি বাজারের একাধিক দোকান দিনদুপুরে লুটপাট চালানো হয়েছিল। সব কিছুর পেছনেই রয়েছে তৃণমূল। যদিও তৃণমূল নেতৃত্ব অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

বিজেপির জেলা সম্পাদক সুবোধ সরকার অবশ্য বলেন, ‘কার্যালয়টি সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। কেউ যাতে সেখানে আবর্জনা না ফেলেন এবিষয়ে নির্দেশ জারি করা হবে।’ তৃণমূলের চোপড়া অঞ্চল সভাপতি তনয় কুন্ডু জানান, এলাকায় এখন আর বিজেপির সংগঠন বলে কিছু নেই। বিজেপির নেতা-কর্মী সকলেই তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। একটা ঘর মাসের পর মাস ফাঁকা পড়ে থাকলে আবর্জনা তো জমবেই। কে কখন আবর্জনা ফেলছেন, তা আমাদের জানার কথা নয়। বিজেপির দলীয় কার্যালয় তাঁরা ফেলে রাখবেন না ব্যবহার করবেন সেটা তাঁদের ব্যাপার।

- Advertisement -