প্রার্থী ঘোষণা হতেই জ্বলছে অসন্তোষের আগুন, বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে পড়ল তালা

142

বর্ধমান: দলের তরফে চূড়ান্ত পর্যায়ে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হতেই অসন্তোষের আগুন জ্বলতে শুরু করে দিকে দিকে। কোথাও পথ অবরোধ তো কোথাও আবার দলীয় কার্যালের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন। অন্যদিকে, একাধিক জায়গায় দলের তরফে ঘোষিত প্রার্থীকে মান্যতা না দিয়ে পড়ে পোস্টার। ক্রমেই সেই ক্ষোভ-বিক্ষোভ চরম আকার নিতে শুরু করে। যার আঁচ পড়ে পূর্ব বর্ধমান জেলার একাধিক বিধানসভা এলাকাতেও। শুক্রবার সকাল থেকেই বর্ধমান, মেমারি, খণ্ডঘোষ, পূর্বস্থলী, মন্তেশ্বর ও কালনা বিধানসভা এলাকায় চলে ক্ষোভ-বিক্ষোভ। কোথাও টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ আবার কোথাও দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখানো হয়। রাজনৈতিক মহলের অভিমত, ভোটের মুখে প্রার্থী নিয়ে বিজেপি শিবিরে ক্ষোভ বিক্ষোভ চরমে ওঠায় উৎফুল্ল তৃণমূল শিবির। যদিও বিজেপি নেতাদের দাবি, ক্ষোভ-বিক্ষোভ সাময়িক। দলের কর্মীরা দলের স্বার্থেই সবকিছু ভুলে একসাথে ভোটের লড়াইয়ে নেমে পড়বে।

দলের তরফে পূর্বস্থলী উত্তর বিধানসভায় প্রার্থী করা হয়েছে বিজ্ঞানী গোবর্ধন দাসকে। যদিও দলের কর্মীরা প্রার্থীকে মেনে না নিয়ে বিষ্ফোরক অভিযোগ তুলেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও
একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। সেই ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দেন পূর্বস্থলী বিধানসভারই বিজেপি কর্মী রানা সিনহা। পরবর্তীতে এদিন রানা সিনহার অনুগামীরা পোস্টার হাতে প্রার্থী গোবর্ধন দাসের বাড়ির সামনে হাজির হয়ে বিক্ষোভে শামিল হন। প্রার্থী বদলের দাবিতে কালনা-কাটোয়া এসটিকেকে রোডে ছাতনী মোড় এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভে সামিল হন বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা। তাদের দাবি, এলাকার মানুষের সুখে-দুঃখে যিনি পাশে থাকেন এমন ব্যক্তিকেই প্রার্থী করতে হবে। দল এই দাবি না মানলে রানা সিনহাকে পূর্বস্থলী উত্তর বিধানসভা আসনে নির্দল প্রার্থী হিসাবে দাঁড় করানো হবে বলে তাঁর অনুগামীরা হুঁশিয়ারি দেন। রানা সিনহা এদিন অভিযোগ করে বলেন, ‘দল পুরোনো বিজেপি কর্মীদের এখন মান্যতা দিচ্ছে না। গোবর্ধন দাস টাকার বিনিময়ে এখানে টিকিট নিয়ে ক্ষমতা দেখাতে চাইছেন।’ একইসঙ্গে হুশিয়ারির সুরে তিনি বলেন, ‘এই প্রার্থীকে না সরালে তিনি নির্দল প্রার্থী হয়ে ভোটে লড়বেন।’

- Advertisement -

পূর্বস্থলীর পাশাপাশি মন্তেশ্বর বিধানসভাতেই বিজেপি শিবিরে ক্ষোভ-বিক্ষোভ ছড়িয়েছে। এই বিধানসভায় প্রার্থী হিসেবে নাম প্রকাশ হয়েছে সদ্য তৃণমূলের সংশ্রব ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদানকারী বিধায়ক সৈকত পাঁজাকে। মন্তেশ্বরের আদি বিজেপি কর্মীরা তাঁকে মেনে নিতে পারছেন না। সেই ক্ষোভ এদিন আছড়ে পড়ে মন্তেশ্বরের বিজেপি কার্যালয়ে। প্রার্থী বদলের দাবিতে শ্লোগান তুলে দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেন তারা।একইসঙ্গে সাতগাছিয়াতেও বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখানো হয় এদিন।

এদিকে, বর্ধমান দক্ষিন বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী সন্দীপ নন্দী, মেমারি বিধানসভার প্রার্থী ভীষ্মদেব ভট্টাচার্য্য এবং খণ্ডঘোষ বিধান সভার বিজেপি প্রার্থী বিজন মণ্ডলকে মেনে নিতে পারেননি দলের বেশকিছু কর্মী ও সমর্থক। স্বাভাবিকভাবেই চলছে ক্ষোভ-বিক্ষোভ।

বিজেপির জেলা সভাপতি কৃষ্ণ ঘোষ জানিয়েছেন, এই ক্ষোভ বেশিদিনের জন্য নয়। দ্রুত সব মিটে যাবে। দলের সকলেই একসাথে কাজ করবেন।