জামুড়িয়ার জঙ্গল থেকে উদ্ধার নিখোঁজ যুবকের মৃতদেহ

59

আসানসোল: জঙ্গল থেকে উদ্ধার নিখোঁজ যুবকের পচাগলা মৃতদেহ। শনিবার আসানসোলের জামুরিয়া থানার কেন্দা ফাঁড়ির তপসি গ্রাম পঞ্চায়েতের কুনুস্তোড়িয়া এরিয়া কার্যালয় লাগোয়া জঙ্গল থেকে দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। এদিন দুপুরে আসানসোল জেলা হাসপাতালে যুবকের মৃতদেহ ময়নাতদন্ত করা হয়। পুলিশ একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে।

জানা গিয়েছে, মৃত যুবকের নাম রঞ্জিত কুমার সাতনামি(৩৫)। জামুড়িয়া থানার কুনুস্তোরিয়া এরিয়া কমপ্লেক্স এলাকার বাসিন্দা। এদিন সকালে যুবকের মৃতদেহ জঙ্গলে পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পরবর্তীতে এলাকার পঞ্চায়েত প্রধান সুশান্ত গোপ ও কেন্দা ফাঁড়িতে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেহ উদ্ধার করে। পঞ্চায়েত প্রধান জানান, দেহটি কার কিভাবেই বা এখানে এল তা তারা বুঝতে পারছেন না।

- Advertisement -

পরবর্তীতে জানা যায়, কুনুস্তোরিয়া এরিয়া কমপ্লেক্সের বাসিন্দা রামধনি সতনামির ছেলে রঞ্জিৎ কুমার সতনামি গত ২০ মে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নিখোঁজ ছিল। খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে আসেন এবং দেহটি ছেলের বলে শনাক্ত করেন। রামধনি সতনামি বলেন, ‘ছেলে মানসিক রোগী ছিল। গত ২০ মে সকালে তপসি যাবে বলে বেরিয়ে ছিল। কিন্তু রাতে বাড়ি না আসাতে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ছেলের খোঁজ পাওয়া যায়নি। এদিন মাঠের কাছে জঙ্গলে একটি মৃতদেহ পড়ে থাকার খবর পেয়ে ছেলের মৃতদেহ শনাক্ত করি।‘ প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশের অনুমান, যুবকের শরীরে কোনও আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের এসিপি তথাগত পান্ডে বলেন, ‘গত ২০ মে থেকে ওই যুবক নিখোঁজ ছিল। পরিবারের তরফে কোনও নিখোঁজের অভিযোগ বা মৃতদেহ উদ্ধারের পরে কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না পাওয়া গেলে জানা যাবে না ঠিক কি কারণে মৃত্যু হয়েছে।