নিখোঁজ শিশুর ট্যাঙ্ক থেকে দেহ উদ্ধার

469

জঙ্গিপুর: সোমবার থেকে রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার এক বছর পাঁচেকের শিশু কন্যার দেহ মঙ্গলবার সকালে উদ্ধার হল সেপটিক ট্যাঙ্কের ভিতর থেকে। ঘটনার জেরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রঘুনাথগঞ্জ থানার জঙ্গিপুর পুরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের রহমানপুর এলাকাতে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গতকাল দুপুর তিনটে নাগাদ বন্ধুদের সাথে খেলতে গিয়ে হঠাৎই নিখোঁজ হয়ে যায় মেহনাজ খাতুন (৫) নামে ওই শিশু কন্যাটি। সোমবার সারাদিন পরিবারের লোকজন বহু খোঁজার পরও তাঁর সন্ধান পায়নি কেউই। মঙ্গলবার সকালে মেহনাজের বাড়ির পাশে একটি নির্মীয়মান বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কের ভিতর তাঁর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন।

- Advertisement -

এরপরই তড়িঘড়ি খবর দেওয়া হয় পরিবারের লোকজনকে। পুলিশ ও পরিবারের লোকজন এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায় জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের ময়নাতদন্তের জন্য। এই ঘটনা কিভাবে ঘটল, কেউ কি মেহনাজকে মেরে সেপটিক ট্যাঙ্কে ফেলেছে না সে খেলতে গিয়ে পড়ে গিয়েছে বর্তমানে দাদা বাঁধছে নানা প্রশ্ন। এদিকে পুরো ঘটনার তদন্তে নেমেছে রঘুনাথগঞ্জ থানার পুলিশ।

মৃত মেহনাজের দাদু মোস্তফা শেখ বলেন, ‘কাল দুপুরে আমার নাতনিকে বাদাম কিনে দিই। তারপর ও বাড়ির পাশে খেলছিল। কিন্তু বিকেলের পর ওকে আমরা আর দেখতে পাইনি। সারা রাত আমাদের এলাকার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়েও ওর খোঁজ পাইনি আমরা। আজ সকালে আমাদের বাড়ির পাশে একটি নির্মীয়মান বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কের ভিতর ওর ভেসে থাকা দেহ আমরা দেখতে পাই।‘

রঘুনাথগঞ্জ থানার আই সি পার্থ ঘোষ বলেন, ‘প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে শিশুটি খেলার সময় বাড়িরই পাশে থাকা খোলা সেপটিক ট্যাঙ্কের ভিতর পড়ে যায়। সেখানে প্রায় ৫ ফুট গভীর জল ছিল। সেখানে ডুবে যায় ওই শিশুটি। মৃতদেহটি আজ ময়নাতদন্তের জন্য জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।‘