দলীয় দপ্তরের দখলদারিকে কেন্দ্র করে বেলেঘাটায় বোমাবাজি

128
সংগৃহীত

কলকাতা: দল বদলের পরেই নেত্রীর বাড়িতে থাকা দলীয় দপ্তর দখলদারির অভিযোগ। ঘটনায় উত্তাল হয়ে উঠল পূর্ব কলকাতার বেলেঘাটা থানার অন্তর্গত চড়কডাঙা। ঘটনায় তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ করেছে বিজেপি। যদিও তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে এবিষয়ে কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি এখনও। বুধবার দুপুরের এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে।

কবি সুকান্ত রোডের বাসিন্দা গীতা রজক মাসকয় আগে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। জানা গিয়েছে, তিনি তৃণমূল কংগ্রেসে থাকাকালীন নিজের বাড়ির সামনেই একটি ঘরে দলীয় দপ্তর বানিয়েছিলেন। যদিও নেত্রীর দল বদলের ঘটনার পরেই ওই দপ্তর থেকে তৃণমূলের পতাকা খুলে দিয়ে বিজেপির পতাকা লাগানো হয়। অভিযোগ, এরপরেই এদিনের হামলার ঘটনা ঘটে ওই দপ্তরের দখলদারি ইস্যুতে। বোমাবাজির অভিযোগও ওঠে। খবর পেয়ে বেলেঘাটা থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

- Advertisement -

গীতা দেবি জানান, তিনি তাঁর বাড়ির সামনের একটি ঘরে দলীয় দপ্তর খুলেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসে থাকাকালীন। মাস দু’য়েক আগে তিনি বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর সেই ঘরটিতেই বিজেপি দপ্তর গড়েছেন। গতকাল সেখানে সরস্বতী পূজার আয়োজন হয়। এরপর এদিন দধি কমা’র পুজো চলাকালীন তৃণমূল আশ্রিত একদল দুষ্কৃতী আচমকাই দলীয় কর্মী এবং মহিলা কর্মীদের ওপর বেধড়ক মারধর শুরু করে। বোমাবাজিও চলে। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এবিষয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেস মনে করেছে শুধু কলকাতা কেন রাজ্যে একমাত্র তারাই থাকবে। অন্য কাউকে বা কোন দলকে তারা থাকতে দেবেন না। এটা তাঁরই লক্ষণ। তবে তৃণমূল যে ‘মূর্খের স্বর্গে বাস’ করছে সেটা আসন্ন নির্বাচনে প্রমাণ হয়ে যাবে।’