কোভিড পরিস্থিতিতে রায়গঞ্জে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বই মেলা

202

রায়গঞ্জ: কোভিড পরিস্থিতির মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবার ২৬তম উত্তর দিনাজপুর জেলা বই মেলা হচ্ছে রায়গঞ্জ করোনেশন হাই স্কুল প্রাঙ্গণে। আগামী ১২ জানুয়ারি মেলার উদ্বোধন হবে দুপুর ২টায়। মেলা চলবে আগামী ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত। এবারের বই মেলা নিয়ে সকলের মধ্যে কৌতূহল ছিল। শেষ পর্যন্ত বই মেলার দিনক্ষণ ঘোষিত হওয়ায় খুশি বই প্রেমীরা। জানুয়ারি বা ফেব্রুয়ারিতে বই মেলা না হলে শেষ পর্যন্ত কবে হবে তা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছিল সকলের মধ্যে। একদিকে করোনা পরিস্থিতি, অন্যদিকে রাজ্য বিধানসভার ভোট তাই বই মেলার আয়োজকেরা চিন্তায় পড়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত কোভিড বিধি মেনে জেলায় বই মেলার আয়োজনের ছাড়পত্র পাওয়ায় স্বস্তিতে আয়োজকেরা। তবে এবছর মেলার উদ্বোধনে থাকছে না র‍্যালি, থাকছে না কোনও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। জমায়েত না করে সাধারণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মেলার উদ্বোধন করবেন গ্রন্থাগার মন্ত্রী সিদ্ধিকুল্লা চৌধুরী। থাকবেন জেলার একমাত্র মন্ত্রী গোলাম রব্বানি সহ বিশিষ্টজনেরা। মাস্ক পড়ে ও স্যানিটাইজার ব্যবহার করে ঢুকতে হবে মেলা প্রাঙ্গণে।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে কিনা তা দেখার দায়িত্বে থাকবেন স্বেচ্ছা সেবকেরা। এবার মেলায় বুক সেলার ও পাবলিশার্সের জন্য  থাকছে ৬০টি স্টল। পাশাপাশি থাকবে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের স্টল। জেলা বই মেলা কমিটির যুগ্ম সম্পাদিকা কেয়া চৌধুরী জানান, সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবারে জেলা বই মেলা হচ্ছে। ১২ জানুয়ারি  থেকে ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে মেলা। উদ্বোধন করবেন গ্রন্থাগার মন্ত্রী সিদ্ধিকুল্লা চৌধুরী। পাশাপাশি থাকবেন জেলার একমাত্র মন্ত্রী গোলাম রব্বানি, জেলা শাসক, জেলা গ্রন্থাগার আধিকারিক সহ অন্যান্যরা। তবে কোনও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকছে না সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং র‍্যালি। উদ্বোধনী সঙ্গীত পরিবেশনের পর মেলার উদ্বোধন করবেন মন্ত্রী। এছাড়াও সাতদিন ব্যাপী বই মেলা প্রাঙ্গণেও থাকছে না কোনও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। তিনি বলেন, কোভিড পরিস্থিতির কারণে সব রকম জমায়েতের উপর এবার নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

- Advertisement -

মেলা প্রাঙ্গণে মাস্ক পড়ে ঢুকতে হবে সকলকে। পাশাপাশি থাকছে স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে সকলকে। কেয়া দেবী বলেন, এবারে ৬০টি স্টল থাকছে। ইতিমধ্যে ৫০ জন বুক সেলার ও পাবলিশার্স যোগাযোগ করেছেন। এবারে যথেষ্ট ভাল সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। সাহিত্যিক দেবেশ চক্রবর্তী, কবি যাদব চৌধুরী, গ্রন্থাগারিক প্রলয় শর্মা সহ অনেকেই বই মেলার উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। কবি যাদব চৌধুরী জানান, বইয়ের বিকল্প শুধু বই। তাই বই মেলা হবে না ভাবাই যায় না। নাট্য নির্দেশক সুনীলেন্দু চক্রবর্তী জানান, বই মানসিক চেতনার বিকাশ ঘটায়। তাই বই মেলা সেই বিকাশের সহায়ক। রায়গঞ্জ মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক অতনু বন্ধু লাহিড়ী বই মেলার উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।