মদ্যপানের বিরোধিতায় মায়ের গলা কেটে খুন করল ছেলে

1941

কালচিনি: মদ্যপানের প্রতিবাদ করায় মদ‍্যপ ছেলের হাতে খুন হলেন মা। দু’জনের মধ্যে বচসা চলাকালীন ধারাল অস্ত্র দিয়ে মায়ের গলায় কোপ বসায় ছেলে। মূহুর্তেই মায়ের কর কতেই মাযেদিযাদ করা মুন্ডটা ছিটকে পড়ে মাটিতে। সোমবার রাতে কালচিনির মেচপাড়া চা বাগান সংলগ্ন এলাকার এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এদিকে ঘটনার পর গা ঢাকা দেয় ছেলে। মঙ্গলবার মৃতের দেহ আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন‍্য পাঠানো হয়।

খবর পেয়ে, অভিযুক্ত ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে কালচিনি থানার পুলিশ। পাশাপাশি মৃত প্রোঢ়ার দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। জয়গাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কুন্তল বন্দ‍্যোপাধ‍্যায় বলেন, অভিযুক্ত ছেলেকে গ্ৰেপ্তার করা হয়েছে। খুনে ব‍্যবহৃত ধারালো অস্ত্রটি পুলিশ উদ্ধার করেছে।

- Advertisement -

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, মেচপাড়া বাগানের পাক্বা লাইনের শ্রমিক বিকাশ ওরাওঁ প্রায় দিন মদ‍্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরতেন। বাগানের কাজও ভালো করে করতেন না। বিগত কয়েক দিন ধরে বাড়িতে মা, বাবা ও পরিবারের অন‍্য সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতেন না তিনি। সোমবার মধ্যে রাতে বিকাশ বাড়ি ঢুকতেই তাঁর মা কিসমইত ওরাওঁ-র সঙ্গে বচসা শুরু হয়। পরিবারের অন‍্য সদস্যরা ঘুমিয়ে থাকায় তাঁরা বিষয়টি প্রথমে আঁচ করতে পারেন নি। এরকম পরিস্থিতিতে চা গাছের কলমে ব‍্যবহৃত কলম ছুরি দিয়ে মায়ের গলায় কোপ বসায় বিকাশ। পরে পরিবারের বাকি সদস্যরা কিসমতের দেহ ও মাথা আলাদা পড়ে থাকতে দেখেন। এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে, প্রতিবেশিরা ছুটে আসতেই বিকাশ ঘটনাস্থল ছেড়ে পালিয়ে যায়।

কালচিনি থানা সূত্রে খবর, মৃত প্রৌঢ়ার মেয়ে মঙ্গলবার কালচিনি থানায় ভাইয়ের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেছেন। এদিকে ধৃতকে মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ার আদালতে তোলা হলে বিচারক জেল হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।