স্বপনকুমার চক্রবর্তী, হবিবপুর : ঠিক যেন কোনো ভৌতিক সিনেমার সেট। ভাঙা টিনের শেড, গোটা প্ল্যাটফর্ম চত্বর ছেয়ে রয়েছে আগাছায়। পিন পড়লেও যেন শোনা যায় সেই আওয়াজ। চারদিক জুড়ে শুধুই নিস্তব্ধতা। আর সারাদিন এমনভাবেই খাঁখাঁ করে গোটা স্টেশন। সংস্কারের অভাবে আর অবহেলায় এখন কার্যত অস্তিত্ব সংকট ব্রিটিশ আমলে তৈরি ঐতিহ্যবাহী বুলবুলচণ্ডী রেল স্টেশনের।

স্থানীয়রা জানান, একটা সময় ছিল যখন হইহই করে যাত্রী নিয়ে এই স্টেশনের ওপর দিয়ে ছুটে যেত ট্রেন। কিন্তু এখন সেসবই ইতিহাস। হয়তো কালেভদ্রে কোনো একটি মালগাড়ি জানান দিয়ে যায়, রেললাইনে এখনও মরচে পড়ে যায়নি। আর সেই জরাজীর্ণ চেহারায় দাঁড়িয়ে থাকা টিনের যাত্রী শেডটিই এখন কেবলমাত্র সাক্ষ্য বহন করে চলেছে বুলবুলচণ্ডী রেলস্টেশনের অস্তিত্বের। রেল-পরিসেবা না থাকায় কম সমস্যায় ভুগতে হয় না স্থানীয় বাসিন্দাদের। তাই এলাকাবাসী এবং বিভিন্ন মহলের মানুষজনের দাবি ফের ঝকঝকে চেহারা ফিরুক বুলবুলচণ্ডী রেলস্টেশনের।

আর সংস্কারের পর যাতে ফের এই স্টেশনের উপর দিয়ে নতুন করে ট্রেন চলাচল করতে পারে সেই দাবিও তুলেছেন তাঁরা। এই বিষয়টি নিয়ে উত্তর মালদার সাংসদ খগেন মুর্মুর মাধ্যমে রেলমন্ত্রকের দৃষ্টি আকর্ষণের কথাও জানিয়েছেন হবিবপুরের বিধায়ক জুয়েল মুর্মু এবং পঞ্চায়েত সমিতির সহকারী সভাপতি মধুম. সরকার। এলাকার মানুষজনের অভিযোগ, বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই এই স্টেশনের উপর দিয়ে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তারপর থেকেই শ্রীহীন অবস্থায় পড়ে রয়েছে স্টেশনটি।

হবিবপুর, বুলবুলচণ্ডী, আইহো ও লাগোয়া এলাকার মনোজিৎ‌ ভগত, দীপেন রায়, সুফল টুডু, আশালতা মণ্ডল সহ অনেকেই বলেন, ব্রিটিশ আমলে তৈরি হয় এই বুলবুলচণ্ডী রেলস্টেশন। শুনেছি সেসময় এই স্টেশনের উপর দিয়ে সিঙ্গাবাদ স্টেশন পর্যন্ত দূরপাল্লার ট্রেন চলাচল করত। কিন্তু সেসবই এখন অতীত। তবে কয়েক বছর আগেও এই স্টেশনের উপর দিয়ে পুরাতন মালদা স্টেশন থেকে সিঙ্গাবাদ স্টেশন পর্যন্ত ট্রেন চলাচল করত। সেটাও কোনো কারণে বন্ধ হয়ে যায়। আর ট্রেন চলাচল বন্ধের পর থেকেই দৈন্যদশা শুরু হয়েছে এই স্টেশনের।

হবিবপুর পঞ্চায়েত সমিতির সহকারী সভাপতি মধুময় সরকারও স্বীকার করেন বুলবুলচণ্ডী রেলস্টেশনের দৈন্যদশার কথা। তিনি বলেন, এই স্টেশন দিয়ে ফের রেলপরিসেবা চালু হলে বামনগোলা-হবিবপুরের মানুষজন উপকৃত হবেন। শীঘ্রই বিষয়টি এলাকার সাংসদের মাধ্যমে রেলমন্ত্রকের কাছে তুলে ধরা হবে। বুলবুলচণ্ডী রেলস্টেশনের সংস্কার ও ফের নতুন করে এই স্টেশনের উপর দিয়ে ট্রেন চলাচলের বিষয়ে আশাবাদী হবিবপুরের বিধায়ক জুয়েল মুর্মুও। তিনি বলেন, মানুষজনের কথা ভেবে বুলবুলচণ্ডী রেলস্টেশনের সার্বিক সংস্কার এবং ফের এই স্টেশনের উপর দিয়ে যাত্রীবাহী ট্রেন চালুর বিষয়টি শীঘ্রই খগেন মুর্মুর মাধ্যমে রেলমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরা হবে।

এলাকার মানুষজনের কথায়, এর আগেও বহুবার সংশ্লিষ্ট দপ্তর সূত্রে বুলবুলচণ্ডী রেলস্টেশনের সংস্কার ও রেল-পরিসেবা চালু হওয়ার কথা শুনেছি। কিন্তু তা আজও বাস্তবায়িত হযনি। এখন দেখার কবে গ্রহণ কেটে ফের প্রাণ ফিরে পায় স্টেশনটি। সেই অপেক্ষাতেই রয়েছেন এলাকাবাসীরা।