বিনয় মিশ্রের খোঁজ পেতে ইন্টারপোলের দ্বারস্থ সিবিআই

79

কলকাতা: কয়লা ও গোরু পাচার কাণ্ডে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশেষ ঘনিষ্ঠ বিনয় মিশ্রের খোঁজ পেতে এবার ইন্টারপোলের দ্বারস্থ হল সিবিআই। এবার বিনয়ের ছবি ও অন্যান্য কাগজপত্র জমা দেওয়া হল ফ্রান্সের লিয়নে অবস্থিত ইন্টারপোলের সদর দপ্তরে। প্রসঙ্গত, ইন্টারপোল কোনও তদন্তকারী সংস্থা নয়। কোনও দেশে কোন অপরাধীকে খুঁজে বের করার ব্যপারে তদন্তের দায়িত্ব তাদের নেই। শুধু কোন দেশের তরফে কোনও পলাতক আসামির ব্যপারে তথ্য জমা দিয়ে তাকে খুঁজে দেওয়ার আর্জি জানালে ইন্টারপোলের পক্ষ থেকে সেসব তথ্য ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ছবি সব দেশের পুলিশ সংগঠনের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়ে থাকে তাদের খোঁজ দেওয়ার জন্য। সাধারণভাবে ইউরোপিয়ানদের ইন্টারপোলের নোটিশ অনুসারে কোন ব্যক্তিকে খুঁজে পেলেও প্রত্যার্পণ সংক্রান্ত আদালতের নির্দেশ ছাড়া সরাসরি তাকে আবেদনকারীদের হাতে তুলে দেওয়া হয় না। তবে দুবাই সহ বেশ কয়েকটি দেশ রয়েছে যারা ইন্টারপোলের বার্তা অনুসারে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে খুঁজে পেলে সরাসরি সংশ্লিষ্ট দেশের হাতে তুলে দিয়ে থাকে।

উল্লেখ্য, কয়লা ও গোরু পাচারের তদন্তে নেমে সিবিআই জানতে পারে, ওই কাণ্ডের মূল পান্ডা হল এনামুল হক, অনুপ মাঝি ওরফে লালা ও বিনয় মিশ্র। এনামুল হককে সিবিআই গ্রেপ্তার করতে সমর্থ হলেও বাকি দু’জনকে এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি। তাদের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই লুক আউট নোটিশ জারি করার পাশাপাশি তাদেরকে ঘোষিত পলাতক অপরাধী হিসেবে ঘোষণা করে তাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার আবেদন সিবিআইয়ের তরফে ইতিমধ্যে আদালতে দাখিল করা হয়েছে। সেই আবেদন মঞ্জুর করা হয়েছে। এবার বিনয় মিশ্র বিরুদ্ধে রেড কর্নার নোটিশ জারি করে ইন্টারপোলের দ্বারস্থ হয়েছে সিবিআই। এর আগে সিবিআইয়ের তরফে বিনয় মিশ্রের চেতলা ও রাসবিহারী অ্যাভিনিউ-র বাড়ি ও দপ্তরে দু’বার তল্লাশি চালানো হয়। পাশাপাশি বেশ কয়েকবার তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁদের দপ্তরে হাজির হওয়ার নোটিশ জারি করা হয়। কিন্তু সেই নির্দেশ অনুসারে বিনয় মিশ্র সিবিআইএর দপ্তরে আজ পর্যন্ত হাজির হননি। অপরদিকে, বিনয়ের ভাই বিকাশ মিশ্রকে ইতিপূর্বে সিবিআই তিনবার ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরই তিনি গা ঢাকা দিয়েছেন। তাঁরও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না বলে সিবিআই সূত্রে জানা গেছে। এবার সিবিআই বিনয়ের খুড়তুতো ভাই অশোক মিশ্রকে তলব করেছে। বাঁকুড়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত ইন্সপেক্টর অশোক মিশ্রকে ইতিমধ্যে অবশ্য সিবিআই দু’বার জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।

- Advertisement -