তৃতীয় বারের মুখ্যমন্ত্রীত্ব সময়ের অপেক্ষা, দাবি তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতির

128

নাগরাকাটা ও বানারহাট: তৃতীয় বারের জন্য ক্ষমতায় আসার পর উত্তরবঙ্গকে আরও ঢেলে সাজাবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এজন্য বিশেষ পরিকল্পনাও নিয়েছেন তিনি। আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বানারহাটে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের (টিএমসিপি) একটি কর্মীসভায় একথা জানিয়েছেন সংগঠনের রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, ‘কেন্দ্র সরকার টাকা দেয়নি। রাজ্যের সাথে ওঁদের চরম বিমাতৃসুলভ আচরণ সত্ত্বেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মাত্র ১০ বছরের মধ্যে উন্নয়নের যে কাজ করেছেন তা বিগত ৫০ বছরেও কেউ করেনি। আগামীতে উত্তরবঙ্গকে আরও ঢেলে সাজাবেন তিনি। এখানকার সমস্ত জনজাতি ও সম্প্রদায়ের উন্নয়নে বিশেষ পরিকল্পনা নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।‘ দলের ছাত্র সংগঠনের এদিনের সভায় উপস্থিত ধূপগুড়ির বিধায়ক মিতালী রায় বলেন,  ‘ডুয়ার্সও নতুন করে সাজবে। ইতিমধ্যেই এখানে শিক্ষা থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য সমস্ত ক্ষেত্রেই অভাবনীয় উন্নতি হয়েছে।‘

আগামী নির্বাচনে নতুন ভোটারদের ভূমিকা যে উল্লেখযোগ্য হতে চলেছে সেকথা উল্লেখ করে কর্মীসভার সমস্ত বক্তারাই টিএমসিপির সদস্য-কর্মীদের আরো বেশী করে তাঁদের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তৃণাঙ্কুর তাঁর ভাষণে কর্মসংস্থান নিয়ে বিজেপি-র নেতৃত্বাধীন কেন্দ্র সরকারকে তুলোধোনা করেন। তুলে ধরেন রাজ্যের মাধ্যমে জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার এই দুই জেলাতে কি কি উন্নয়নের কাজ হযেছে তার বিশদ পরিসংখ্যানও। তিনি বলেন, স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি মেনে মুখ্যমন্ত্রী বানারহাটকে আলাদা ব্লক করে দিয়েছেন। এখানেই প্রথম হিন্দি কলেজ তৈরি হয়েছে। রাজ্যে একটি হিন্দি বিশ্ববিদ্যালয়ও তৈরি হবে। চা শ্রমিকদের মজুরি ১৭৬ টাকা থেকে বাড়িয়ে২০২ টাকা করা হয়েছে। চা সুন্দরীর মতো ঐতিহাসিক একটি প্রকল্পের মাধ্যমে বাগানের দুস্থ শ্রমিকরা সরকারী খরচে বাড়ি পাবেন। আলিপুরদুয়ারে বিশ্ববিদ্যালয় হয়েছে। জলপাইগুড়িতে গড়া হচ্ছে মেডিকেল কলেজ। ছাত্র-যুবরা মনে করছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিভাবকত্বেই তাঁরা সবচেযে বেশী সুরক্ষিত। তৃণাঙ্কুরের সংযোজন, স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা বিভিন্ন সরকারী প্রকল্পের সুবিধা যেমন পেয়েছন ঠিক তেমনই স্কুল ছুটের প্রবণতাও এখানে কমেছে। উচ্চ শিক্ষার সূযোগ বাড়ায় ছাত্র-যুবরা দারুনভাবে লাভবান হয়েছেন। নতুন ভোটাররা এবার আমাদের বিরাট জয়ে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নেবে বলেই আশা পোষণ করি।

- Advertisement -

ধূপগুড়ির বিধায়ক মিতালী রায় বলেন, ‘বানারহাট আলাদা ব্লক হয়েছে। আশা করছি এরপর ধূপগুড়ি মহকুমা হবে। হাতিনালার বন্যা মোকাবিলায় বানারহাটে বাঁধ তৈরি করা হয়েছে। তৈরি হচ্ছে মার্কেট কমপ্লেক্স। উত্তরকন্যা থেকে শুরু করে ডুয়ার্স কন্যার মতো মিনি সচিবালয় একমাত্র মুখ্যমন্ত্রীরই ভাবনার ফসল। বিভিন্ন জনজাতিদের উন্নয়নেও রাজ্যের ভৃমিকার প্রশংসা করার কোন ভাষা নেই। কামতাপুরি ও রাজবংশী ভাষায় স্কুল চালু হতে চলেছে। অন্তর্বর্তী বাজেটে সাদ্রী, সাঁওতালি সহ আরও নানা ভাষায় স্কুল চালুর কথা ঘোষনা করা হয়েছে। সমস্ত কিছুই এবারের নির্বাচনে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা হচ্ছে।‘

বানারহাট হাইস্কুলে আয়োজিত টিএমসিপির এদিনের কর্মী সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টিএমসিপি-র জলপাইগুড়ি জেলা কমিটির সভাপতি অভিজিৎ সিনহা, নাগরাকাটার প্রাক্তন বিধায়ক যোশেফ মুন্ডা, তণমূলের বানারহাট সাংগঠনিক ব্লকের সভাপতি নয়ন দত্ত, জেলা সম্পাদক রাজু গুরুং প্রমুখ।