থানায় বসে চাউমিন খেয়ে জেল হেপাজতে সন্দেহভাজন চিনা গুপ্তচর

170

মালদা: টানা দশদিন জেরার পরও মুখ খোলানো গেলনা ভারতে প্রবেশ করতে গিয়ে ধৃত সন্দেহভাজন চিনা গুপ্তচর হান জুনেইয়ের। উল্টে থানায় বসে চাউমিন খেয়ে ১৪ দিনের জেল হেপাজতে গেলেন এই চিনা নাগরিক। মালদা আদালতের এপিপি দেবজ্যোতি পাল জানিয়েছেন ইতিমধ্যে লখনউয়ের অ্যান্টি টেররিস্ট স্কোয়াড যোগাযোগ করছে।সম্ভবত শুক্রবার গোয়েন্দারা ওই চিনা নাগরিককে নিজেদের হেফাজতে নিতে আবেদন জানাবে।

প্রসঙ্গত, গত ১০ জুন বাংলাদেশ থেকে ভারতে অবৈধ ভাবে প্রবেশ করতে গিয়ে বিএসএফের হাতে ধরা পড়ে চিনা গুপ্তচর হান জুনেই। তাকে দফায় দফায় জেরা করে বিএসএফ, পুলিশ এমনকি এনআইএর বিশেষ দল। আদালতে পেশের পর হানকে ৬ দিনের পুলিশ হেপাজত দেওয়া হয়। এরপরই পুলিশের জেরায় তার কাছে থেকে বেরিয়ে আসে একেরপর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা যায় দিল্লিতে এক হোটেল ব্যবসায়ীর সঙ্গে তার ঘনিষ্টতার কথা। ওই ব্যবসায়ী গ্রেপ্তারের পর লখনউ এটিএস খুঁজতে থাকে হানকে। এমন সময় বাংলাদেশ থেকে ভারতে প্রবেশ করতে গিয়ে ধরা পড়ে যায় সে।

- Advertisement -

গোয়েন্দারা জানতে পেরেছে ভারত থেকে প্রচরু সিমকার্ড সংগ্রহ করে চিনে পাচার করেছে হান। চিনের সেনা পরিচালিত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে স্নাতক হানের ল্যাপটপ ক্র্যাক করেছেন গোয়েন্দারা। তবে ধৃত ওই গুপ্তচরের কথায় বেশ কিছু অসঙ্গতি রয়েছে। ইতিমধ্যে এনআইএ, সিআইডি রাজ্য পুলিশের স্পেসাল টাস্ক ফোর্সের তরফে হান জুনেইকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।