বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে হাতির মৃত্যু

350

নীহাররঞ্জন ঘোষ, মাদারিহাট: ইলেকট্রিক তারে জড়িয়ে মারা গেল একটি মাদি হাতি। বুধবার ভোর পূর্ব মাদারিহাটে জনৈক মনোজিত বর্মনের বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে। বনকর্মীরা জানান, হাতিটির বয়স প্রায় ২৫ বছর। এলাকার পঞ্চায়েত সদস্য সুভাষ দাস জানান, বুধবার ভোরে একদল হাতি গ্রামে তান্ডব চালায়। কয়েকটি ঘর ও প্রচুর সুপারি গাছ ভেঙ্গে ফেলে। এরই মধ্যে একটি সুপারি গাছ ভেঙ্গে ইলেকট্রিক তার ছিঁড়ে পড়েছিল। মনোজিত বাবুর বাড়িতে ছেঁড়া তার পড়েছিল। হাতিটি ওই বাড়িতে কাঁঠাল খেতে গিয়ে তারে জড়িয়ে যায়।

মনোজিত বাবু জানান, হঠাৎ হাতির চিৎকার শুনে বাইরে বের হতেই দেখেন তার বাড়ির সামনে হাতিটি পড়ে রয়েছে। এরপর বনকর্মীদের খবর দেওয়া হয়। জলদাপাড়া নর্থ রেঞ্জের পঞ্চাশ ফুট বিটের বিট অফিসার সঞ্জীব রায় জানান খবর পেয়েই তারা ঘটনাস্থলে চলে আসেন। তিনি জানান প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, ইলেকট্রিক শক খেয়েই হাতিটি মারা গিয়েছে। সুপারি গাছ ভেঙ্গে যে তার ছিঁড়েছে তার প্রমাণও রয়েছে।

- Advertisement -

ইলেকট্রিক তারে জড়িয়ে মারা গেল একটি হাতি

পূর্ব মাদারিহাটে ইলেকট্রিক তারে জড়িয়ে মারা গেল একটি হাতি

Posted by Uttarbanga Sambad on Tuesday, June 23, 2020

জলদাপাড়া নর্থ রেঞ্জের রেঞ্জার শ্রীবাস সরকার জানান, হাতিটি দলের সঙ্গে থাকলেও হয়তো কাঁঠাল খেতে একাই ওই বাড়িতে ঢুকেছিল। সেসময় ইলেকট্রিক তার ছিঁড়ে থাকায় তারে জড়িয়ে গিয়েই মারা যায় হাতিটি। যদিও ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে প্রকৃত কারণ জানা যাবে। মনোজিত বাবু জানান, তারা নিজেরাই গিয়ে বিদ্যুতের লাইন বন্ধ না করলে আরও অনেক হাতি মারা যেত। মুষলধারে বৃষ্টির মধ্যেই জীবনের ঝুকি নিয়ে লাইন বন্ধ করেছেন তাঁরা। আর ওই সময় হাতির দল কাছেই দাঁড়িয়ে ছিল। তবে বুধবার ভোর পাঁচটা নাগাদ হাতির দলটি জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানে ঢুকে যায়।