কৃষি আইনের বিরোধিতায় মহা পঞ্চায়েত গঠনের সিদ্ধান্ত সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার

86

আসানসোল: বিধানসভা নির্বাচনের মুখে পশ্চিম বর্ধমান জেলার আসানসোল, পশ্চিম মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম সহ বাংলায় সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার তরফে ৪টি মহা পঞ্চায়েত সভা করার কথা জানানো হল। আসানসোলে সোমবার এক সাংবাদিক সম্মেলন করে এই রাজ্যে, দিল্লি ও সর্বভারতীয় স্তরে কিষাণ আন্দোলন নিয়ে এব্যাপারে অবহিত করেন মোর্চার নেতৃবৃন্দ। পশ্চিমবঙ্গ কৃষক সমন্বয় কমিটির তরফে আসানসোলের জিটি রোডের রামবন্ধুতলা গুরুনানক কমিউনিটি হলে ওই সাংবাদিক সম্মেলন হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে বিহার কিষাণ সংঘর্ষ মোর্চার নেতা দীনেশ সিং উপস্থিত ছিলেন।

ইউনাইটেড কিষাণ মঞ্চের সদস্য হিমাংশু তেওয়ারি বলেন, ‘বাংলায় আমরা ৪টি মহাপঞ্চায়েত করব। কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে আমরা কৃষকদের অধিকারের জন্য লড়াই করছি ও করব। পুরো কর্মসূচিটি অরাজনৈতিক ভাবে করা হচ্ছে। এই রাজ্যের সব মানুষ কৃষকদের এই আন্দোলনকে সমর্থন জানাচ্ছেন। কৃষকদের সঙ্গে সময়মতো দিল্লিতে গিয়ে তাঁরা সমর্থনও দিয়েছেন। যাই হোক না কেন বাংলার মানুষ এই আন্দোলনে কৃষকদের পাশে রয়েছেন।

- Advertisement -

তিনি আরও বলেন, ‘আগামী ১২ মার্চ মহা পঞ্চায়েত নিয়ে কলকাতার ভবানীপুরে একটি সভা হবে। সেখানে বাংলার কর্মসূচির রণনীতি তৈরী করা হবে। এরপর ১৩ মার্চ সকাল ১১টায় নন্দীগ্রামে ও কলকাতায় বিকেল ৫টায় মহা পঞ্চায়েত হবে। পরের দিন ১৪ মার্চ একেই সকাল ১১টায় শিলিগুড়ি ও বিকেল ৫টায় আসানসোল পোলো গ্রাউন্ডে কিষাণ মোর্চার মহা পঞ্চায়েত হবে।’

সেন্ট্রাল গুরুদ্বোয়ারা প্রবন্ধ কমিটির প্রধান তেজেন্দ্র সিং বলেন, ‘সারা বাংলা কৃষকদের এই আন্দোলনকে সমর্থন করছে। প্রতিটি সভায় তাঁরা যোগ দেবেন। কিভাবে কৃষক বিরোধী এই কালাকানুন নিয়ে আন্দোলন করতে গিয়ে প্রায় ২০০ জন কৃষক মারা গিয়েছেন। তাদের নামে মিথ্যে পুলিশ অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই বিষয়গুলিও এই ৪ মহা পঞ্চায়েতে তুলে ধরা হবে।’