পলাশবাড়ি থেকে ফের লালা নমুনা সংগ্রহ করল স্বাস্থ্য দপ্তর

269
পলাশবাড়ির শিলবাড়িহাটে দোকানের ঝাপ বন্ধ করছে পুলিশ।

পলাশবাড়ি: আলিপুরদুয়ার ১ ব্লকের পলাশবাড়ি থেকে ফের ৫০ জনের লালা নমুনা সংগ্রহ করল স্বাস্থ্য দপ্তর। শুক্রবার কনটেনমেন্ট জোনের বাসিন্দাদের করোনা পরীক্ষার জন্য লালা নমুনা নেওয়া হয়।

এদিকে এদিন দুপুর বারোটা থেকেই শিলবাড়িহাট সহ গোটা পূর্ব কাঁঠালবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় সাত দিনের পূর্ণ লকডাউন শুরু হয়েছে। তবে শিলবাড়িহাটে এদিন দুপুর বারোটা পর্যন্ত দোকানপাট খোলা ছিল। এক সপ্তাহ লকডাউন ঘোষণা হওয়ায় এদিন মুদির দোকানগুলি থেকে বাসিন্দারা খাদ্য সামগ্রী কিনে নেন।

- Advertisement -

অভিযোগ,বারোটার পরও কিছু দোকান খোলা ছিল। তবে পরে পুলিশ ওইসব দোকান বন্ধ করে দেয়। সোনাপুর ফাঁড়ির ওসি তাপস হোড় বলেন, ‘আমি নিজেও পলাশবাড়ি এলাকা পরিদর্শন করেছি। কিছু দোকান হয়তো খোলা ছিল। পুলিশ বন্ধ করে দিয়েছে। জীবনের স্বার্থে এলাকার মানুষকে গ্রাম পঞ্চায়েত ঘোষিত এই লকডাউন মেনে চলা উচিত। আমরাও এলাকায় নজরদারি চালাচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, গত শনিবার পলাশবাড়ির বাসিন্দা এক পুলিশকর্মী করোনায় আক্রান্ত হন। সোমবার রাতে একই এলাকার দু’জন সিভিক ভলান্টিয়ারও করোনায় সংক্রমিত হওয়ায় গোটা পূর্ব কাঁঠালবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। গত মঙ্গলবার এলাকার ১২৬ জনের লালার নমুনা সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য দপ্তর। সেই লালা নমুনা গুলির রিপোর্ট কী আসে সেদিকেই এখন তাকিয়ে রয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা। এদিকে দুই সিভিক ভলান্টিয়ারের পাড়াকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হয়। এদিন সেখানকার বাসিন্দাদের লালা নমুনা সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য দপ্তর। এদিকে আক্রান্তদের প্রাথমিক সংস্পর্শে আসায় এলাকার প্রায় ২৫০ জন মানুষ হোম কোয়ারান্টিনে রয়েছেন। হোম কোয়ারান্টিনে আছেন তৃণমূল কংগ্রেসের পূর্ব কাঁঠালবাড়ি অঞ্চল সভাপতি নিরঞ্জন রায়,উপপ্রধান সৌরভ পাল সহ অনেকেই।