সুতিতে প্রার্থী ঘিরে ক্ষোভ কংগ্রেসের অন্দরে, দল ছাড়তে চলেছেন এই হেভিওয়েট নেতা

92

মুর্শিদাবাদ: সুতি বিধানসভায় কংগ্রেস পুরনো প্রার্থী হুমায়ুন রেজাকে পুনরায় মনোনয়ন দেওয়াতে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে কংগ্রেস কর্মী সমর্থকদের একাংশের মধ্যে। এরই জেরে পদত্যাগ করতে চলেছেন সুতি ২ ব্লকের কংগ্রেস সভাপতি আলফাজউদ্দিন বিশ্বাস। কংগ্রেসকর্মীদের অভিযোগ, গত ৫ বছরে হুমায়ুন রেজাকে সাধারণ মানুষ পাশে পায়নি। অন্যদিকে, সুতি বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী ইমানি বিশ্বাসকে পছন্দ না হওয়ায় সম্প্রতি তৃণমূল ত্যাগ করেছেন জেলা পরিষদের খাদ্য ও সরবরাহ কর্মাধ্যক্ষ মইদুল ইসলাম।

সূত্রের খবর, আগামী ২৩ মার্চের আগেই কংগ্রেস থেকে পদত্যাগ করতে চলেছেন সুতি ২ ব্লকের কংগ্রেস সভাপতি আলফাজউদ্দিন বিশ্বাস। তবে, পদত্যাগের খবর সত্যি হলে সুতি বিধানসভা কেন্দ্রে এবার কংগ্রেস এবং তৃণমূলের সাথে ত্রিমুখী লড়াই হতে চলেছে নির্দল প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিতে যাওয়া মইদুল ইসলামের। এছাড়াও স্থানীয় তৃণমূলের অন্য দুই শীর্ষ নেতা ওবাইদুর রহমান এবং আনিকুল ইসলাম এই জোটে যোগ দিচ্ছেন বলেও জানা গেছে। ২৩ মার্চ সুতিতে জেলা বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের যে কর্মসূচি রয়েছে তার আগেই জেলা বিড়ি শ্রমিক সংগঠনের জেলা সভাপতি আলফাজুদ্দিন কংগ্রেস ছাড়তে চলেছেন বলে জানা গেছে।

- Advertisement -

স্থানীয় কংগ্রেসকর্মীরা জানান, ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে এসে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী ছাপঘাটিতে জনসভা করার সময় প্রতিশ্রুতি দিয়ে গিয়েছিলেন হুমায়ুন রেজাকে শেষবারের মত প্রার্থী করা হচ্ছে। ২০২১ নির্বাচনে ওই বিধানসভা কেন্দ্রে আলফাজুদ্দিন বিশ্বাসকে প্রার্থী করা হবে বলে জানিয়েছিলেন তিনি। সেই প্রতিশ্রুতি না রাখাতে এলাকার কংগ্রেসকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়।

আলফাজউদ্দিন বিশ্বাস বলেন, ‘সুতির সাধারণ জনগণ ইমানি বিশ্বাসকে প্রার্থী হিসেবে দেখতে রাজি নন। তাই তাঁরা বিকল্প মুখের খোঁজ করছেন। সুতিতে কংগ্রেস প্রার্থী ঘোষণার পর অধীর চৌধুরী আমার সঙ্গে একবারও যোগাযোগ করার প্রয়োজন বোধ করেননি। মইদুল যদি নির্দল প্রার্থী হিসেবে সুতিতে দাঁড়ায় তাহলে আমার পূর্ণ সমর্থন তাঁর দিকে থাকবে।‘ মইদুল ইসলাম বলেন, ‘উনি একজন বর্ষীয়ান নেতা। উনার সমর্থন থাকলে আমাদের জয় নিশ্চিত।‘