দাবিদারহীন ১২টি মৃতদেহ সৎকারের জন্য পুলিশকে চিঠি পাঠাল হাসপাতাল

112
ফাইল ছবি

বিশ্বজিৎ সরকার, রায়গঞ্জ: কোনও ক্ষেত্রে নেই দাবিদার। আবার কোনও ক্ষেত্রে দাবিদার থাকলেও তারা মৃতদেহ ফেরত নিতে নারাজ। ফলত লাশের পাহাড় জমতে শুরু করেছে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে। সংখ্যাটাও নেহাত কম নয়। মর্গ সূত্রে খবর, এক এক করে ১২টি লাশ পড়ে রয়েছে সেখানে। স্বাভাবিকভাবেই বিপাকে পড়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সমস্যা সমাধানে এবার মৃতদেহ সৎকারের বিষয় উল্লেখ করে রায়গঞ্জ জেলা পুলিশকে চিঠি দিল হাসপাতাল।

মর্গ সূত্রে খবর, সম্প্রতি ইটাহার থানার বেকিডাঙ্গা এলাকায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে দুটি লরির মুখোমুখি সংঘর্ষে এক লরি চালকের মৃত্যু হয়েছিল। ছিন্নভিন্ন মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছিল পুলিশ। অন্যদিকে, উত্তর দিনাজপুর জেলার ডালখোলার কানকিতে ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছিল রেল পুলিশ। দুটি মৃতদেহই ময়নাতদন্তের পর মর্গে পড়ে রয়েছে। এখনও কারও নাম-পরিচয় জানা যায়নি। রায়গঞ্জ থানার এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করা হয়েছে। নাম পরিচয় জানার জন্য বিভিন্ন থানায় ফোন করা হয়েছে।

- Advertisement -

শুধু এই দুটি মৃতদেহ নয়। এমনই ১২টি মৃতদেহ পড়ে রয়েছে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে। মর্গ সূত্রে খবর, প্রায় এক মাস সময় ধরে মৃতদেহগুলি সেখানে রয়েছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কেউ মৃতদেহ নিতে আসেননি। উলটোদিকে এমনও ঘটনা রয়েছে যে ময়নাতদন্তের পর মৃতদেহ ফেরত নিতে নারাজ পরিবার। স্বাভাবিকভাবেই সামগ্রিক ঘটনায় কার্যত বিপাকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সহকারী অধ্যক্ষ প্রিয়ঙ্কর রায় বলেন, ‘সমস্ত বিষয় পুলিশকে জানানো হয়েছে। মৃতদেহগুলি সৎকারের জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে।’

রায়গঞ্জের পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানান, বিষয়টি থতিয়ে দেখা হচ্ছে।