প্রেমেরডাঙ্গায় হাসপাতালের জায়গা জবরদখল হয়ে যাচ্ছে

84

ফেশ্যাবাড়ি : উন্নত স্বাস্থ্য পরিষেবা চান মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের প্রেমেরডাঙ্গা এলাকার বাসিন্দারা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, প্রায় তিন দশক আগে স্থানীয় সচেতন নাগরিকরা স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নতির জন্য হাসপাতাল তৈরি করতে ৯ বিঘা জমি দান করেছিলেন। বর্তমানে প্রেমেরডাঙ্গা হাসপাতাল মাঠ হিসেবে তা পরিচিত। সেখানে খট্টিমারি উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়ে উঠলেও হাসপাতালের দাবি এখনও অধরা। ফলে দিন-দিন সংকীর্ণ হচ্ছে হাসপাতালের জমি। জমি জবরদখল হয়ে যাচ্ছে। বিধানসভা নির্বাচনের মুখে বিষয়টি নিয়ে শুরু হয়েছে চর্চা।

এলাকাবাসীর বক্তব্য, কেউ অসুস্থ হলে বা কোনও দুর্ঘটনা ঘটলে প্রায় ৭ কিমি দূরে নিশিগঞ্জ প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র অথবা ১০ কিমি দূরে ঘোকসাডাঙ্গা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যেতে হয়। অন্যথায় ঘুরপথে প্রায় ৪০ কিমি দূরে কোচবিহার শহরে নিয়ে যেতে হয়। সপ্তাহে একদিন পার্শ্ববর্তী নিশিগঞ্জ প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে একজন চিকিৎসক এসে খট্টিমারি উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রে রোগী দেখেন। হাসপাতাল গড়ে না ওঠায় জমি ফাঁকা থাকার সুযোগে জমি জবরদখল হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন বাসিন্দারা। স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য রামা রায় জানান, প্রত্যন্ত এলাকার বেহাল স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নতির লক্ষ্যে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়া অত্যন্ত জরুরি।

- Advertisement -

স্থানীয় শিক্ষক দীপু বর্মন বলেন, এলাকার বাসিন্দাদের স্বাস্থ্যকেন্দ্র নির্মাণের দাবি বহু বছরের। একাধিক স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ প্রশাসনের কর্তাদের জানিয়ে লাভ হয়নি। স্থানীয়দের অভিযোগ, ভোটের আগে একাধিক রাজনৈতিক দল স্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও আজও সেই দাবি অধরাই রয়েছে। চিকিৎসা করাতে দূরবর্তী নিশিগঞ্জ অথবা ঘোকসাডাঙ্গা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যেতে হচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রেমেরডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান কল্পনা বর্মন বলেন, আমিও চাই স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নতির লক্ষ্যে প্রেমেরডাঙ্গায় হাসপাতাল মাঠে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়ে উঠুক। ভোটপর্ব শেষ হলে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তপক্ষের নজরে আনব। একই কথা জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দা তথা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জেলা সহ সভাপতি রাজীব দত্ত।

এলাকাবাসী তথা বিজেপির সংখ্যালঘু মোর্চার জেলা সভাপতি সিদ্দিক আলি মিয়াঁর অভিযোগ, এক দশক তৃণমূল ক্ষমতায় থেকেও বৃহত্তর এলাকাবাসীর স্বার্থে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র নির্মাণে সদিচ্ছা দেখায়নি। আমরাও একাধিকবার দাবি জানিয়েছি। কিন্তু কাজ হয়নি। ভোটের প্রচারে সবই তুলে ধরছি। স্থানীয় বাসিন্দা তথা সিপিএমের নিশিগঞ্জ এরিয়া কমিটির সম্পাদক আসিরুদ্দিন মিয়াঁর দাবি, প্রত্যন্ত প্রেমেরডাঙ্গা এখনও একাধিক সমস্যায় জর্জরিত। ভোটের প্রচারে সবই তুলে ধরছি। অবিলম্বে উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রটিকে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে উন্নীত করা দরকার। এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য দপ্তরের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি।