অগ্নিকাণ্ডে শ্রমিকের বাড়ি পুড়ে ছাই, খোলা আকাশের নীচে ঠাঁই পরিবারের  

99

সামসী: অগ্নিকাণ্ডে এক পরিযায়ী শ্রমিকের বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেল। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার গভীররাতে চাঁচল-২ ব্লকের চন্দ্রপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার পুরাতন খানপুর গ্রামে। আগুন লাগার খবর পেয়ে দমকল রওনা দেওয়ার আগেই গ্রামবাসীদের প্রচেষ্টায় আগুন নেভানো হয়। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বাড়ির মালিকের নাম মহম্মদ আলাউদ্দিন। পেশায় পরিযায়ী শ্রমিক। তিনি বর্তমানে কেরালায় রয়েছেন। পুরাতন খানপুর বাঁধের পাশে আলাউদ্দিনের বাড়ি। উপরে টালি ও টিনের বেড়া দিয়ে তাঁর দুটি শোয়ার ঘর ও একটি রান্না ঘর ছিল। আগুনে কোনও কিছুই অবশিষ্ট নেই আর। আগুন লাগার প্রকৃত কারণ জানা যায়নি।

আগুনে সবকিছু হারিয়ে এখন খোলা আকাশের নীচে ঠাঁই নিয়েছে ওই অসহায় পরিবার। মহম্মদ আলাউদ্দিনের স্ত্রী গুলফন বিবি বলেন, ‘দুটি শোয়ার ঘরের বিছানা, কাঁথা, পরনের কাপড়, জামা সব পুড়ে গিয়েছে। ঘরে থাকা বাক্সটিও পুড়ে গিয়েছে। বাক্সের ভিতরে সমস্ত নথিপত্রও পুড়ে গিয়েছে। পুড়েছে বাক্সে থাকা নগদ ৩০ হাজার টাকাও। এদিনই কেরালা থেকে স্বামীর পাঠানো টাকাটা ব্যাংক থেকে তুলেছিলেন গুলফন। রান্নার ঘরে থাকা রান্নার সামগ্রী, ধান, চাল, আটা, সরষে সব কিছু পুড়ে গিয়েছে।’

- Advertisement -

তিনি আরও বলেন, ‘সবমিলিয়ে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তিন লক্ষের বেশি হবে। পরিবারের একমাত্র আয়ের উৎস তাঁর স্বামী। আগুনের খবর পেয়ে স্বামী হতাশ। রোজার ঈদে বাড়ি আসার কথা ছিল। কিন্তু আর আসতে পারবেন না তিনি। আরও কিছুদিন থেকে পুনরায় বাড়িঘর নির্মাণ করার অর্থ উপার্জন করতে হবে তাঁকে। আগুনে সব কিছু হারিয়ে পাঁচ মেয়ে ও দুই ছেলেকে নিয়ে খোলা আকাশের নীচে ঠাঁই নিয়েছে গুলফন। সাহায্যের জন্য পঞ্চায়েত ও ব্লক প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছেন তিনি।’

আগুন লাগার খবর পেয়ে পুরাতন খানপুর গ্রামে বৃহস্পতিবার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান মালতীপুর বিধানসভার মিমের প্রার্থী মতিউর রহমান, তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী আব্দুর রহিম বক্সি, জোট প্রার্থী তথা বিদায়ি বিধায়ক আলবেরুনি। তাঁরা তিনজনই অসহায় পরিবারটিকে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দেন।