গৃহবধূকে অর্ধনগ্ন করে নিগ্রহ ময়নাগুড়িতে

248

ময়নাগুড়ি: কুমারগ্রামের পর ময়নাগুড়ি। গৃহবধূকে অর্ধনগ্ন করে চুল কেটে মারধরের অভিযোগ উঠল প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে। বুধবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে ময়নাগুড়ি ব্লকের আমগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বেতগারায়। বৃহস্পতিবার ওই গৃহবধূকে চিকিৎসার জন্য ময়নাগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। যদিও বর্তমানে তিনি সুস্থ রয়েছেন। পরবর্তীতে মহিলার স্বামী ময়নাগুড়ি থানায় এই বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদে সরব হয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

ওই মহিলার প্রতিবেশীদের অভিযোগ, গত ১৪ জুন রাতে পাড়ার এক যুবক ওই মহিলার বাড়িতে যায়। সেই সময় মহিলার স্বামী দীনবন্ধু রায় বাড়িতে ছিলেন না। এরপরই ওই যুবকের সঙ্গে মহিলার অবৈধ সম্পর্কের অভিযোগ তুলে সরব হন প্রতিবেশীদের একাংশ। এই ঘটনা নিয়েই এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়। পরের দিনই বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেশীদের সঙ্গে ওই পরিবারের বৈঠক হয়। ঘটনার মীমাংসাও হয়ে যায় বলে নির্যাতিতার পরিবারের সদস্যদের দাবি। অভিযোগ, ফের ১৬ জুন সন্ধ্যায় স্থানীয়রা চড়াও হয়। এরপর তাদের এক দল জোর করে  মহিলাকে বাড়িতে অর্ধনগ্ন করে মাথার চুল কেটে দিয়ে নিগ্রহ করে। নির্যাতিতা মহিলার স্বামীকেও আটকে রাখা হয় বলে অভিযোগ। এরপর মহিলা অচৈতন্য হয়ে পড়লে তাঁকে ময়নাগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয়।

- Advertisement -

বেতগারা ভদ্রমোহন বুথের তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি দীলিপকুমার রায় বলেন, ‘এই ঘটনা কোনভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। পুলিশে অভিযোগ করা হয়েছে। তদন্ত করে দোষীদের সনাক্ত করে উপযুক্ত শাস্তি প্রদানের দাবি জানাই।‘ নির্যাতিতার স্বামী দীনবন্ধু রায় পেশায় দিনমজুর। তিনি বলেন, ‘আমরা বুধবার সন্ধ্যায় বাড়িতে ঢোকার সময় চড়াও হয় স্থানীয়রা। তারপরই এই ঘটনা। বাড়িতে ৫ বছরের মেয়ে রয়েছে। প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছি। প্রতিবেশী ওই যুবক মাঝেমধ্যেই আমাদের বাড়িতে আসতেন। যুবকের সঙ্গে আমাদের সুসম্পর্ক রয়েছে। প্রতিবেশীদের এই অভিযোগ সত্য নয়।‘