আজ থেকে বন্ধ হচ্ছে জঙ্গল, ক্ষতির অঙ্ক বিশাল  

243

সোনাপুর: উত্তরবঙ্গের তথা ডুয়ার্সের অর্থনীতিতে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে পর্যটন শিল্পের। সরকারি নিয়মানুসারে ১৫ জুন থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জঙ্গলে প্রবেশ নিষেধ থাকে। প্রতিবছর একই পরিস্থিতি হলেও এবছর এই বন্ধ থাকা পর্যটন ব্যবসায় কতটা প্রভাব ফেলবে সেই ছবি এখনও পরিষ্কার হচ্ছে না। তবে এই ‘ডাল সিজেনেও’ কিছু ব্যাবসা হবে বলেই মনে করছেন কিছু পর্যটন ব্যাবসায়ী। করোনা দ্বিতীয় ঢেউ আসতেই গত ৩ মে বন দপ্তর বিজ্ঞপ্তি জারি করে অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ করে দেয় জঙ্গল সাফারি। সেই বিজ্ঞপ্তির পর আর কোনো বিজ্ঞপ্তি আসেনি।

জলদাপাড়া ওয়াইল্ড লাইফ জাতীয় উদ্যানের ডিএফও দীপক এম বলেন, ‘জঙ্গলে প্রবেশ বন্ধই আছে। কবে খুলবে সেটা নতুন নির্দেশিকা না আসা পর্যন্ত বলা যাবে না। বর্ষার সময় এমনিতেও জঙ্গলে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকে। সাধারণ ভাবে ডুয়ার্সে রোজ ৪৫-৫০ লক্ষ টাকার ব্যাবসা হয়। শুধু বক্সা টাইগার রিজার্ভকে কেন্দ্র করেই প্রায় ৫ লক্ষ টাকার ব্যাবসা হয়। সেটা এক ধাক্কায় অনেকটাই কমে যাবার আশঙ্কা রয়েছে।‘ আলিপুরদুয়ার ডিস্ট্রিক ট্যুরিজম অ্যাসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ গৌতম রায় বলেন, ‘জঙ্গল বন্ধ থাকলে একটা বড় ক্ষতি। যদি পর্যটকরা লজ এবং হোম স্টে গুলোতে আসেন সেটা অনেকটা উপযোগী হয়।‘

- Advertisement -