চাঁচলে সামিউলকে প্রার্থী চেয়ে সভা ইমাম-মোয়াজ্জেনদের

165

চাঁচল: ভোট ঘোষণা হলেও প্রার্থীপদ ঘোষণা হয়নি। তাই চাঁচলে জেলা পরিষদ সদস্য সামিউল ইসলামকে শাসকদলের প্রার্থীপদ চেয়ে পথে নেমেছেন তাঁর অনুগামীদের পাশাপাশি দলেরই একাংশ। রবিবার থাহাঘাটি,তুলসীহাটা ও কয়েকটি এলাকায় সামিউলকে প্রার্থী করার দাবিতে পথসভা হয়। তাঁদের দাবি, এলাকায় সামিউল ইসলাম উন্নয়ন করেছেন। তারপর রবিবার চাঁচলে একটি বেসরকারি লজে তাকে প্রার্থী করার দাবিতে সভা করেন এলাকার ইমাম ও মোয়াজ্জেনরা।

নির্বাচনের নির্ঘন্ট ঘোষনা হয়ে গিয়েছে। কিন্তু কোনও দলই এখনও তাঁদের প্রার্থীপদ ঘোষনা করেনি। তবে শাসকদলের প্রার্থী পদ সোমবার ঘোষণা করতে পারেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু চাঁচল বিধানসভায় শাসকদলের প্রার্থী চেয়ে তাঁর অনুগামীদের পাশাপাশি ইমাম, মোয়াজ্জেনরা পথে নামায় দলের অন্দরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। দলেরই বিরোধীপক্ষের দাবি,দলের উপরে চাপ বাড়াতে এই কৌশল নেওয়া হয়েছে। যদিও জেলা পরিষদ সদস্য সামিউল বিরোধীদের অভিযোগ সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করেছেন।

- Advertisement -

এদিকে, চাঁচল বিধানসভায় শাসকদলের প্রার্থী ঘোষণা না হলেও প্রার্থীর দৌড়ে রয়েছে জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষ তথা পেশায় চাঁচল সিদ্ধেশ্বরী স্কুলের শিক্ষক এটিএম রফিকুল হোসেন,তৃণমূল নেতা আব্দুল খালেকের নাম এমনটাই শোনা যাচ্ছে। গতবার শাসকদলের প্রার্থী ছিলেন গায়ক সৌমিত্র রায়। কিন্তু তিনি কংগ্রেসের আসিফ মেহবুবের কাছে চুয়ান্ন হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন। তবে কংগ্রেসের আসিফ মেহবুবই পুনরায় কংগ্রেসের প্রার্থী থাকছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে।

জেলা ইমাম ও মোয়াজ্জেন কমিটির সম্পাদক মহম্মদ শেফাতুল্লাহ জানিয়েছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় আমরা ভাতা পাই। আমরা শাসকদলের সাথে রয়েছি ও থাকব।’ তিনি বলেন, ‘এবারের ভোট গুরুত্বপূর্ণ। সামিউল ঘরের ছেলে। সকলের পাশে দাঁড়ান। এটা কংগ্রেসের মাটি।এবার জেলা পরিষদে কংগ্রেসকে হারিয়ে জয়ী হয়েছে সামিউল। তাই এবার চাঁচল বিধানসভার একেবারে উপযুক্ত প্রার্থী সামিউল ইসলাম।’

তবে এপ্রসঙ্গে জেলা পরিষদ সদস্য সামিউল ইসলাম সাফ বলেন, ‘ইমাম, মোয়াজ্জেনরা আমাকে প্রার্থী করার দাবি তুলেছেন বিষয়টি শুনেছি। বিষয়টি আমার জানা ছিল না। প্রার্থী পদের জন্য তাঁর নাম তোলায় তিনি ইমাম-মোয়াজ্জেনদের অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই। কেউ চাইলেই আমি প্রার্থী হতে পারব না এমনটা নয়। প্রার্থী ঠিক করবেন দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একমাত্র তিনি চাইলেই হবে। তবে চাঁচলে দলের প্রার্থী যেই হোক না কেন তাঁর হয়ে খেটে জেতানো হবে।’

চাঁচল-১ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সচ্চিদানন্দ চক্রবর্তী জানান, ইমাম-মোয়াজ্জেনরা কাকে প্রার্থী চাইছেন তা তাঁর জানা নেই। তবে চাঁচল বিধানসভায় এবার কে প্রার্থী হবেন সেটা তো দলের ব্যাপার। দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় খুব শীঘ্রই প্রার্থী ঘোষণা করবেন।