ভোটের মুখে ফের জয়গাঁ পুরসভা গঠনের আশ্বাস মন্ত্রীর

236

জয়গাঁ: আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে আলিপুরদুয়ার জেলার ভুটান সীমান্তের শহর জয়গাঁর বাসিন্দাদের মন জয় করতে ফের একবার জয়গাঁ পুর সভা গঠনের আশ্বাস দিলেন রাজ্যের শ্রম ও আইন মন্ত্রী মলয় ঘটক। বুধবার জয়গাঁর ভুটান গেট সংলগ্ন নেতাজি সুভাষ রোডে দলীয় কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন জয়গাঁবাসীর দীর্ঘ দিনের আশা জয়গাঁ পুরসভা গঠনের জন্য জেলার নেতাদের বলে যাব মুখ্যমন্ত্রীকে সবাই মিলে আবেদন জানান। জয়গাঁ পুরসভা গঠনের জন্য তিনি নিজেও মুখ্যমন্ত্রীকে জানাবেন বলে তাঁর বক্তব্যে জানান মলয় বাবু। তিনি জয়গাঁ দমকল কেন্দ্রটি দ্রুত চালু করার বিষয়টিও সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে জানাবেন বলে জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত বিধানসভা নির্বাচনের আগে মুখ্য মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জয়গাঁয় এসে ঘোষনা করেছিলেন জয়গাঁ পুরসভা দ্রুত গঠন করবেন বলে। যদিও বাসিন্দাদের অভিযোগ ভোট পর্ব শেষ হতেই মুখ্যমন্ত্রী তাঁর ঘোষনা থেকে পিছিয়ে আসেন। অন্যদিকে, এদিন দলীয় কর্মসূচিতে শ্রমমন্ত্রী বলেন পাশের রাজ্য অসমে বিজেপি সরকার সাধারন মানুষকে বিনা পয়সায় ‌র‌্যাশন দিচ্ছে না। এ রাজ্যে সাধারন মানুষকে বিনা পয়সায় র‌্যাশন দিচ্ছেন ও পরবর্তীতে এই ব্যবস্থা চালু রাখা হবে বলে মুখ্য মন্ত্রী ঘোষনা করেছেন। এছাড়াও রাজ্যবাসী কন্যাশ্রী, রূপশ্রীর মতো প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছেন। এছাড়াও তিনি বলেন কেন্দ্রের বিজেপি সরকার মানুষকে গালভরা প্রতিশ্রুতি দিলেও কাজের কাজ কিছুই করছে না।

- Advertisement -

এদিন দলের জেলা কমিটির তরফে জয়গাঁয় বিজেপিসহ অন্য দল থেকে তৃণমূলে যোগদান অনুষ্ঠানে শ্রম মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দলের জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী, জেলা কো অর্ডিনেটর পাসাং লামা, আলিপুরদুয়ারের বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তী, ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় সহ জেলা ও কালচিনি ব্লক নেতৃত্ব। পাসাং লামা বলেন, এদিন প্রায় ২১০০ নেতা ও কর্মী বিজেপি, গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করেছেন।

অন্যদিকে, জেলার রাজনৈতিক মহলের ধারনা গত বৃহস্পতিবার খোকলাবস্তিতে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের পাল্টা সভা করে বিজেপিকে জবাব দিতেই মলয় বাবুর মতো শীর্ষ নেতা জয়গাঁ এলেন বলে মত রাজনৈতিক মহলের। উল্লেখ্য, বিজেপির সভা করা নিয়ে বৃহস্পতিবার উত্তপ্ত হয়ে ওঠে জয়গাঁ ও সংলগ্ন এলাকা। বিজেপির অভিযোগ তৃণমূলের সমর্থকরা বিজেপির রাজ্য সভাপতির কনভয়ে পাথর বৃষ্টি করে। তৃণমূলের কয়েকজন নেতার নামে পুলিশে অভিযোগ জানায় বিজেপি নেতৃত্ব। এ বিষয়ে তৃণমূলের জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী বলেন, বিজেপি মিথ্যে মামলা করে তৃণমূলকে হেয় করতে চাইছে।

বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, দিলীপ ঘোষ বাংলায় আগুন লাগাতে চাইছেন। জেলায় এসে তিনি সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাঁধানোর চেষ্টা করছেন। কিন্তু দিলীপ ঘোষকে অশান্তি ছড়াতে দেওয়া হবে না। অন্যদিকে এদিনের কর্মসূচিতে জেলা ও ব্লকের তাবড় নেতারা উপস্থিত থাকলেও দেখা যায়নি প্রাক্তন জেলা সভাপতি ও জেলা পরিষদের মেন্টর মোহন শর্মাকে। যদিও এ বিষয়ে দলের প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।