বর্ধমান, ১৬ অগাস্টঃ বাল্য বিবাহ বন্ধের বার্তাকে সামনে রেখে গত বুধবার পূর্ব বর্ধমান জেলার ছাত্রীরা পালন করেছিল কন্যাশ্রী দিবস। অথচ বৃহস্পতিবার জেলার দুই ব্লকে চলছিল তিন নাবালিকার বিয়ের আয়োজন। যদিও ওই তিন নাবালিকার বিয়ের পিঁড়িতে বসার আগেই তাদের বাড়িতে পৌঁছিয়ে বিয়ে বন্ধ করান প্রশাসনিক কর্তারা। চাপের মুখে পড়ে অবিভাবকরা মুচলেখা দেন তাঁদের মেয়ে সাবালিকা না হওয়া পর্যন্ত আর বিয়ে দেবেন না।
প্রশাসন সূত্রে জানাগেছে, মন্তেশ্বর ব্লকের দুই নাবালিকা ও ভাতারের এক নাবালিকার বিয়ের ঠিক করেন তাদের অবিভাবকরা। সেই খবর পাওয়া মাত্রই নড়ে চড়ে বসেন ব্লক প্রশাসন কর্তারা। তাই সময় মতো ওই তিন জনের বাড়িতে পৌঁছে যান প্রশাসনিক কর্তারা।
এই প্রসঙ্গে মন্তেশ্বর ব্লকের বিডিও বিপ্লব দত্ত বলেন, ‘সারা বছর ধরে এই বিষয়টি নিয়ে সচেতনতা প্রচার চালান হচ্ছে। কিন্তু কিছু অভিবাবক সব জেনেও নিজের নাবালিকা মেয়ের বিয়ের দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। প্রশাসন সজাগ রয়েছে। যতই লুকিয়ে চুরিয়েই নাবালিকার বিয়ের আয়োজন করা হোক না কেন তা প্রশাসন রুখবেই’।