সদ্যোজাত শিশুকন্যাকে খুনের অভিযোগ মায়ের বিরুদ্ধে

302

শুভজিৎ পণ্ডিত, বারবিশা: এক সদ্যোজাত শিশুকন্যাকে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠল তাঁরই মায়ের বিরুদ্ধে। ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে কুমারগ্রাম ব্লকের বারবিশা নিউটাউন এলাকায়। স্থানীয়দের অভিযোগ, রবিবার দুপুরে ওই মহিলার বাড়িতেই কন্যা সন্তানের প্রসব হয় এর আগে তাঁর আরও ছটি কন্যা সন্তান রয়েছে। এবারও কন্যা সন্তান হওয়ায় জন্য মেরে ফেলা হয়েছে। অভিযোগ, প্রসব যন্ত্রণার পরও কেন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল না? চিকিৎসকের পরামর্শ কেন নেওয়া হল না? স্থানীয়রা বলেন, অভিযুক্ত লক্ষী দে তাঁর বাচ্চাকে প্রসব হওয়ার পরই গলা টিপে মেরে ফেলেন। ঘটনা জানাজানি হতেই ওই বাড়ির সামনে জমায়েত করেন স্থানীয়রা।

বিষয়টি অবশ্য অস্বীকার করেছেন ওই মহিলার স্বামী রতন দে। তিনি বলেন, জন্মের সময় পেটেই বাচ্চাটি মারা গিয়েছে। যদিও তিনি সেই সময় বাড়িতে ছিলেন না। এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা গৌতম মিত্র, ঝুমা মিত্র বলেন, এর আগে আরও ছটি কন্যা সন্তান ছিল এবারও কন্যা সন্তান হয়েছে। ছেলে সন্তান না হওয়ায় জন্য এই ঘটনা। দোষীদের উপযুক্ত শান্তির দাবি জানাচ্ছি।

- Advertisement -

ঘটনার পর কুমারগ্রাম থানার বারবিশা ফাঁড়ির পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত জন্য আলিপুরদুয়ার জেলার হাসপাতালে পাঠিয়েছে। এই ঘটনার পর স্থানীয়দের তরফে বারবার প্রশ্ন উঠেছে কেন সদ্যোজাতের মৃতদেহ ঘরের পিছনে ঢেকে রাখা হল তাহলে কি ঘটনা ধামা-চাপা দেবার চেষ্টা করছে অভিযুক্তরা। এ বিষয়ে কুমারগ্রাম ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক মিহির কর্মকার বলেন, খুবই মর্মান্তিক ঘটনা। আমি হতবাক হয়েছি। এ বিষয়ে পুলিশ সঠিক তদন্ত করুক।

আলিপুরদুয়ারের একটি সেচ্ছাসেবী সংগঠনের তরফে রাতুল বিশ্বাস বলেন, ‘বাড়িতে প্রসব করানো হল কেন? এ ধরণের হত্যা খুবই মর্মান্তিক। কন্যাসন্তান হওয়ায় জন্য কি এই ঘটনা? আমরা এর সঠিক তদন্ত চাই। এর জন্য যা করনীয় আমরা তাই করব।’ রিপোর্টের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্ত করছে।