সাপের ভয়ে ছেলেকে নিয়ে ঘর ছাড়লেন মা

324

আলিপুরদুয়ার: বিষধর সাপ পোকামাকড়ের দৌরাত্ম্যে প্রায় দুমাস ঘরছাড়া বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন মা ও তাঁর ছেলে। ঘরে রয়েছে শুধুমাত্র বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন বাবা নিত্যানন্দ বর্মন। একদিকে রুটিরুজিতে টান, অপরদিকে পোকামাকড়ের উপদ্রবে দিশেহারা ওই পরিবার। আলিপুরদুয়ারের ভাটিবাড়ী গ্রাম পঞ্চায়েতের পূর্ব খলিসামারি গ্রামের বাসিন্দা ওই দম্পতি। এহেন পরিস্থিতিতে নিত্যানন্দ বর্মন সরকারি ও বেসরকারি সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন।

নিত্যানন্দ বর্মন জানান, তাঁর ছোট একটা পানের দোকান রয়েছে। সেখানেই এক কোণে থানেক তাঁরা। এখন দিনে ১০ টাকাও রোজগার হয় না। ফলে পরিবারের তিন সদস্যের দুবেলা খাবার জোটাতেই হিমশিম খেতে হচ্ছিল তাঁকে। বাড়ি বলতে টিনের চালা দেওয়া একটি মাটির ঘর। সেখানে মাটির নিচে এমনকি ঘরের ভেতরেও সাপ পোকামাকড়ের অবাধ বিচরণ ক্ষেত্র। ভয়ে প্রায় দুমাস আগে নিত্যানন্দবাবুর স্ত্রী আড়াই বছরের ছেলেকে নিয়ে বাপের বাড়িতে গিয়ে আপাতত ঠাঁই নিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘মাসে আমরা দুজনে এক হাজার টাকা করে সরকারি ভাতা পাই। স্ত্রী মুক ও বধির। আমি মুম্বইয়ে শ্রমিকের কাজ করতে গিয়ে ১৪ বছর আগে এক দুর্ঘটনায় জখম হয়ে সোজা হয়ে দাঁড়ানোর ক্ষমতাটাই হারিয়ে ফেলেছি। ফলে এখন সংসার চালানোটাই আমার কাছে কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। নিজের ভিটেমাটি ছাড়া কিছু নেই। তাই একটা সরকারি পাকা ঘর পেলে অন্তত পোকামাকড়ের উৎপাত থেকে নিজেদের রক্ষা করে পরিজনদের নিয়ে বাড়িতে থাকতে পারতাম।‘

- Advertisement -

স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য দেবতোষ দাস বলেন, ‘খুবই দুস্থ পরিবার। ওই পরিবারের সরকারি প্রকল্পের ঘরের তালিকা নাম রয়েছে। আশা করছি খুব শীঘ্রই হয়তো সরকারি পাকা ঘরও পেয়ে যাবেন। সুযোগ হলেই ওই পরিবারকে সরকারি অন্যান্য সহযোগিতাও করা হয়।‘