সম্প্রীতির নিদর্শন চাঁচলে, প্রাচীন মন্দির সংস্কারে এগিয়ে এলেন মুসলিমররা

229

চাঁচল: সম্প্রীতির ছবি ধরা পড়ল চাঁচলে। হিন্দু মন্দির নির্মাণে এগিয়ে এলেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ৷ মন্দির নির্মাণে আর্থিক অনুদান দিয়ে সম্প্রীতির নজির গড়লেন চাঁচল থানার সিহিপুর গ্রামের মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ৷ সিহিপুর বারোয়ারি দুর্গা মন্দিরের পুনর্নিমাণের কাজ বেশ কিছুদিন হল শুরু হয়েছে৷ আর সেই মন্দির নির্মাণে ৮ লক্ষ টাকা বাজেট ধরা হয়েছে। সেই টাকা জোগানে এগিয়ে এসেছেন চাঁচল এলাকার সংখ‍্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ। মন্দির কমিটির সদস্য সুবল চন্দ্র সাহা বলেন, ‘আমাদের মধ‍্যে ভাতৃত্বের বন্ধন বজায় রয়েছে। মন্দিরের সংস্কারে সবাই যে এগিয়ে আসবে ভাবতে পারিনি। আমাদের এলাকা সহ বিভিন্ন এলাকায় সাম্প্রদায়িক শক্তির ভিত মজবুত হোক এটাই কামনা করি।’

মন্দির কমিটির সম্পাদক কাজল দাস জানান, ‘সিহিপুরের দুর্গা মন্দিরের ছাদ ঢালাইয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এলাকার মানুষের সহযোগিতায় কাজ চলছে জোর কদমে। কিন্তু মাঝে একটা সময় অর্থের অভাবে কাজ এগোচ্ছিলনা। পরে নির্মাণের কাজে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারাও৷ তবে সেখানে শুধু হিন্দু সম্প্রদায় নেই৷ রয়েছেন সমস্ত ধর্মের মানুষই৷

- Advertisement -

ব্রিটিশ আমলে ১৯০১ সালে এলাকার বাসিন্দা ডাঃ যতীশ চন্দ্র মজুমদারের ঠাকুরদা টিনের ছাউনি দিয়ে প্রথম মন্দিরটি নির্মাণ করেছিলেন। প্রায় ৫০ বছর মজুমদার পরিবারের উদ‍্যোগেই দুর্গা পুজো হয়ে আসছিল সেখানে। পরে পরিবারের সদস‍্যরা নিজের জীবিকার প্রয়োজনে অন্যত্র চলে যান। তাদের বাড়িটিও এখন জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। গ্রামবাসীরাই নিজেদের উদ‍্যোগে প্রতিবছর দুর্গা মায়ের পূজা করে আসছেন। ১২০ বছরের পুরোনো ওই মন্দিরটিও ভগ্ন হয়ে পড়ে। তাই সংস্কার অত‍্যন্ত জরুরি ছিল।