নিমতিতা বিস্ফোরণের ঘটনায় চার্জশিট দাখিল এনআইএ’র

167

জঙ্গিপুর: নিমতিতা বিস্ফোরণের ঘটনার প্রায় ছ’মাস পর মঙ্গলবার এনআইএ কলকাতার নগর দায়রা আদালতে চার্জশিট জমা দিল। সূত্রের খবর, চার্জশিটে দুজন ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। গত ১৭ ফেব্রুয়ারি কলকাতাতে তৃণমূল কংগ্রেসের একটি বৈঠকে যোগ দিতে যাওয়ার সময় মুর্শিদাবাদের নিমতিতা রেল স্টেশনের ২ নম্বর প্ল্যাটফর্মে একটি বিস্ফোরণের ঘটনাতে জাকির হোসেন সহ আরও প্রায় ২৫ জন আহত হন। বিস্ফোরণের তীব্রতায় তাদের কয়েকজনের হাত-পা উড়ে যায়। রাজ্যের শ্রম দপ্তরের প্রাক্তন মন্ত্রী জাকির হোসেনের বাঁ পা ওই বিস্ফোরণে গুরুতরভাবে জখম হয় সঙ্গে ডান হাতের একটি আঙুল বাদ যায়। তারপর থেকে আজও রাজ্যের মন্ত্রী সহ অনেকেই স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে পারে না। আহতদের প্রায় সকলেই গরিব ও দিনমজুর। সরকারিভাবে তাদের চিকিৎসা করানো হয়েছিল।

নিমতিতা বিস্ফোরণের পর ঘটনার সত্যটা উন্মোচনের জন্য রাজ্য সরকার একটি স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম গঠন করলেও পরবর্তীকালে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা(এনআইএ) বিস্ফোরণের ঘটনার তদন্তভার হাতে নেয়। কিন্তু সিআইডি’র হাতে গ্রেপ্তার হওয়া আবু সামাদ এবং সাইদুল শেখকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এনআইএ’র গোয়েন্দারা তদন্তে বিশেষ কিছু অগ্রগতি করতে পারেন নি। একাধিকবার এনআইএ’র গোয়েন্দারা নিমতিতা স্টেশনে বিস্ফোরণ স্থল ঘুরে দেখেছেন এবং একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে বিস্ফোরণের কারণ খোঁজার চেষ্টা করেছে। তদন্ত চলাকালীন জাকির হোসেন এলাকার কিছু প্রবাভশালী ব্যক্তি ঘটনায় যুক্ত থাকতে পারে বলেও অভিযোগ করেছিলেন।

- Advertisement -

এনআইএ তদন্তভার হাতে নেওয়ার আগে সিআইডি দুই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলা রুজু করেছিল। সূত্রের খবর, আজ জমা পড়া চার্জশিটে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলার সঙ্গে বিস্ফোরক আইনে মামলা এবং ইউএপিএ ধারা যোগ করেছে এনআইএ। দীর্ঘ ছ’মাস তদন্ত করে এনআইএ নতুন করে কাউকে গ্রেপ্তার করতে না পাড়ায় অখুশি রাজ্যের শ্রম দপ্তরের প্রাক্তন মন্ত্রী জাকির হোসেন। তাঁর কথায় দোষীরা শাস্তি পেলে খুশি হতাম। এত বড় ঘটনায় এনআইএ শুধুমাত্র দুজনকে পেল।