প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতিকে তীব্র ভর্ৎসনা আদালতের

246
সংগৃহীত ছবি

কলকাতা: ২০১৪ সালের প্রাথমিক টেট পরীক্ষায় ৬টি প্রশ্ন ভুল ছিল। সেই সংক্রান্ত একটি মামলায় ২০১৮ সালে বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় নির্দেশ দিয়েছিলেন মামলাকারীদের উত্তরপত্র পুনরায় মূল্যায়ন করে যাঁরা যোগ্য বিবেচিত হবে তাদের চাকরি দিতে হবে। কিন্তু কয়েক বছর হয়ে গেলেও আদালতের সেই নির্দেশ এখনও কার্যকর করেনি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকে এদিন আদালতে ডেকে পাঠিয়ে এই প্রসঙ্গে তীব্র ভর্ৎসনা করে।

মানিক বাবু আদালতকে জানান, আদালতের নির্দেশ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মামলাকারী ছেলেটিকে আমরা চাকরি দিয়ে দিয়েছি। ২০১৪ সালের টেট পরীক্ষার প্রশ্ন ভুল মামলায় যে সমস্ত চাকরিপ্রার্থী পরবর্তীকালে উত্তীর্ণ হয়েছেন তাদের চাকরি কেন এখনও ফেলে রেখেছেন? এটা কোনও অহংকারের ব্যাপার নয়। প্রার্থীরা আপনার থেকে অনেক কম বয়সী। ছেলেমেয়ের মতো। আপনাদের হাতে অনেক টাকা আছে। কিন্তু ওরা আর কতদিন লড়াই করবে? ওদের চাকরি গুলো দিয়ে দিন। কতদিন ধরে লড়াই করে যাচ্ছে। আপনি চাইলেই এদের সমস্যার সমাধান করে দিতে পারেন। তাহলে কেন ঝুলিয়ে রেখেছেন। পাশাপাশি, ভবিষ্যতে পর্ষদ যাতে আদালতের নির্দেশের উপেক্ষা না করে সেই বিষয়টিও খেয়াল রাখার কথা বলেন পর্ষদ সভাপতিকে।

- Advertisement -