নতুন বছরেই পালটে যাচ্ছে জাতীয় সড়কে যান চলাচলের নিয়ম

556

গাজোল: ১ জানুয়ারি থেকে পালটে যাচ্ছে জাতীয় সড়কে যান চলাচলের নিয়ম। আর এই নিয়ম না মেনে চললে চরম সমস্যায় পড়তে হতে পারে আপনাকে। বিশেষ করে যাদের চারচাকা এবং তার অধিক চাকার যানবাহন রয়েছে। আগামী জানুয়ারি থেকে ম্যানুয়ালি টোল ট্যাক্সের পরিবর্তে শুরু হচ্ছে ‘ফাস্ট্যাগ’ এর মাধ্যমে টোল ট্যাক্স প্রদানের নিয়ম লাগু করা হচ্ছে। এই প্রক্রিয়ার ফলে একদিকে যেমন সময় বাঁচবে তেমনি টোল প্লাজার সামনে দীর্ঘ গাড়ির লাইনও আর দেখা যাবে না। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই টোলগেট পেরিয়ে যেতে পারবে যে কোনো যানবাহন।

টোল ট্যাক্সের নতুন নিয়ম সম্পর্কে বলতে গিয়ে টোলপ্লাজার প্রজেক্ট ম্যানেজার মনোজ কুমার তিওয়ারি বলেন, ‘আগামী ১ জানুয়ারি থেকে টোল ট্যাক্স প্রদানের ক্ষেত্রে আসতে চলেছে আমূল পরিবর্তন। এখন থেকে আর টোলপ্লাজার কাউন্টারে দাঁড়িয়ে নগদ টাকা দিয়ে টোলপ্লাজা পেরিয়ে যাওয়ার নিয়ম কানুনে বড় পরিবর্তন নিয়ে এসেছে ভারত সরকার। যার নাম হচ্ছে ‘ফাস্ট্যাগ’। এখন থেকে এই অ্যাপের মাধ্যমে টোল ট্যাক্সের টাকা প্রদান করতে হবে চার চাকা এবং তার অধিক চাকার যানবাহনের মালিকদের। অনলাইনে বা ব্যাংকে গিয়ে টাকা দিয়ে নির্দিষ্ট সময় অন্তর এটি রিচার্জ করা যাবে। এর ফলে নানারকম সমস্যা থেকে মুক্ত হতে পারবেন যান চালকেরা। যেমন এই ট্যাগ লাগানো যেকোনও গাড়ি কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে টোলগেট পেরিয়ে যেতে পারবে। যার ফলে টোলপ্লাজার সামনে আর দীর্ঘ গাড়ির লাইন চোখে দেখা যাবে না। দূর হয়ে যাবে যানজট, বাঁচবে পেট্রোল, ডিজেল। সাধারণ মানুষের সময়ও অনেক বেঁচে যাবে। আমরা দীর্ঘদিন ধরেই এই বিষয় নিয়ে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছি।‘

- Advertisement -

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের শিবিরে এসে কিংবা যে পাঁচটি ব্যাংকের মাধ্যমে ফাস্ট্যাগ দেওয়া হচ্ছে সেই সমস্ত ব্যাংকে গিয়ে টাকা জমা করতে পারবেন মালিক অথবা চালকেরা। ইতিমধ্যে আমাদের শিবির থেকেও প্রচুর গাড়িকে ফাস্ট্যাগ দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে ৫৫ শতাংশ গাড়ি এই নিয়মের আওতায় চলে এসেছে। বাকি দুই দিনের মধ্যে বাকি ৪৫ শতাংশ গাড়ির মধ্যে যত সম্ভব বেশি গাড়িকে এর আওতায় নিয়ে আসার চেষ্টা করছি আমরা। তবে যে সমস্ত গাড়ি এখনো এর আওতায় আসেনি তাদের জন্য আমরা একটি লেন খোলা রাখব। সেখানে দিয়ে ঐ সমস্ত গাড়িগুলোর কাছ থেকে টাকা নিয়ে রসিদ দিয়ে টোলগেট পার করানো হবে। তবে সেক্ষেত্রে ঐ সমস্ত গাড়িগুলিকে বিশাল লাইনের সামনে পড়তে হতে পারে। সমস্ত গাড়ির চালক এবং মালিকদের কাছে আমাদের অনুরোধ আপনারা অতি দ্রুত ফাস্ট্যাগ এর আওতায় চলে আসুন।‘